বাংলাদেশের সামনে ১৮১ রানের চ্যালেঞ্জ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ক্রিকেট

বাংলাদেশের সামনে ১৮১ রানের চ্যালেঞ্জ

ওয়ালটন টি-২০ সিরিজের চতুর্থ ও শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে ১৮১ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান সংগ্রহ করেছে সফরকারীরা। হ্যামিল্টন মাসাকাদজার ৯৩, ওয়ালারের ৩৬ ও মুতুম্বামির ৩২ রানের ওপর ভর করে এ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে। এ ম্যাচ জিততে হলে বাংলাদেশকে রেকর্ড গড়তে হবে।

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ছবি সংগৃহীত

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ছবি সংগৃহীত

আজ শুক্রবার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন সফরকারী দলের অধিনায়ক এল্টন চিগুম্বুরা। ম্যাচটি শুরু হয় বিকেল ৩টায়। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। ০.৫ ওভারে মাশরাফির বলে সাকিবের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন হার্ডহিটার উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ভুসি সিবান্দা (৪)।

তবে তিনি আউট হলেও রানের চাকা সচল রাখেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও রিচমন্ড মুতুম্বামি। তারা রীতিমতো বাংলাদেশি বোলারদের ওপর ছড়ি ঘোরাতে থাকে। মাত্র ২৭ বলে ৫০ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটসম্যান। তাদের কল্যাণে এক পর্যায়ে ১ উইকেট হারিয়ে ১০ ওভারে ৮৪ রান সংগ্রহ করে ফেলে জিম্বাবুয়ে।

এসময় বাংলাদেশের হয়ে কাঙ্খিত ব্রেক থ্রো আনেন তরুণ সেনসেশন আবু হায়দার রনি। ১০.১ ওভারে তার বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন মারকাটারি ব্যাটসম্যান রিচমন্ড মুতুম্বামি (৩২)। এরপর ১১.১ ওভারে অর্ধশতক পূরণ করেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। মাত্র ৩৫ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় অর্ধশতক করেন তিনি।

১৫.১ ওভারে তাসকিনের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন জিম্বাবুয়ের বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান ম্যালকম ওয়ালার (৩৬)। এরপর ক্রিজে আসেন জিম্বাবুয়ের মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান সিকান্দার রাজা। তবে তিনি বেশিক্ষণ ক্রিজে স্থায়ী হতে পারেননি। ১৬. ১ ওভারে সাকিবের বলে নুরুল হাসানের স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান (২)। টপ অর্ডারের চার চারজন ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফিরে গেলেও এক প্রান্ত আগলে রাখেন মাসাকাদজা। তার সুবাদে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান তুলে বাংলাদেশের সামনে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয় জিম্বাবুয়ে। ৯৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে মাসাকাদজা ও ৫ রানে এল্টন চিগুম্বুরা পরাজিত থাকেন। মাত্র ৫৮ বলে ৯৩ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলার পথে মাসাকাদজা ৮টি চার ও ৫টি ছক্কার মার মারেন।

বাংলাদেশের হয়ে রনি, সাকিব, তাসকিন ও মাশরাফি প্রত্যেকে নেন ১টি করে উইকেট।

সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে বাংলাদেশ দলে এসেছে তিনটি পরিবর্তন। দলে ফিরেছেন অভিজ্ঞ ড্যাশিং উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। তার সঙ্গে ফিরেছেন বামহাতি স্পিনার আরাফাত সানি ও ডানহাতি পেসার তাসকিন আহমেদ। এদের জায়গা দিতে দল থেকে বাদ পড়েছেন তৃতীয় ম্যাচে খেলা মোহাম্মদ শহীদ, মুক্তার আলি ও মোসাদ্দেক হোসেন।

এটি বাংলাদেশের ৫০তম টি-২০ ম্যাচ।  চার ম্যাচ টি-২০ সিরিজে ২-১ এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। এ ম্যাচ জিততে পারলে প্রথমবারের মতো টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজ জিতবে বাংলাদেশ। একইসঙ্গে কোটি টাইগারভক্তদের মতো খুলনাবাসীও নতুন বছরের প্রথম সিরিজ জয়ের সাক্ষী হতে প্রস্তুত।

বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক) তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান, নুরুল হাসান (উইকেটরক্ষক), আরাফাত সানি, তাসকিন আহমেদ ও আবু হায়দার রনি।

জিম্বাবুয়ে দল: এলটন চিগুম্বুরা (অধিনায়ক), টেন্ডাই চিসোরো, গ্রায়েম ক্রেমার, নেভিল মাদজিভা, হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, লুক জঙ্গো, পিটার মুর, রিচমন্ড মুতুম্বামি, ভুসি সিবান্দা, সিকান্দার রাজা, ম্যালকম ওয়ালার।

এই বিভাগের আরো সংবাদ