দক্ষিণ এশিয়ায় আন্তঃবাণিজ্য বাড়ানোর আহ্বান শিল্পমন্ত্রীর
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

দক্ষিণ এশিয়ায় আন্তঃবাণিজ্য বাড়ানোর আহ্বান শিল্পমন্ত্রীর

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে আন্তঃবাণিজ্যের সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে এ অঞ্চলের রপ্তানি আয় কয়েকগুণ বেড়ে যাবে বলে মনে করেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

রাজধানীর বিজয় নগরীর একটি হোটেলে আজ বৃহস্পতিবার দক্ষিণ এশীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তা সম্মেলন-২০১৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। সাউথ এশিয়ান কান্ট্রিজ এসএমই ফোরাম ও জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি বাংলাদেশের (নাসিব) যৌথ উদ্যোগে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

Amir Hossen Amu2

রাজধানীর বিজয় নগরীর একটি হোটেলে আজ বৃহস্পতিবার দক্ষিণ এশীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তা সম্মেলন-২০১৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। ছবি: মহুবার রহমান

মন্ত্রী বলেন, প্রায় ১৭০ কোটি মানুষের বিশাল বাজার দক্ষিণ এশিয়া। কিন্তু এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে আন্তঃবাণিজ্যের পরিমাণ মোট রপ্তানি আয়ের মাত্র ৫ শতাংশ। বিদ্যমান আন্তঃবাণিজ্যের সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগাতে পারলে এই অঞ্চলের দেশগুলোর রপ্তানি কয়েকগুণ বেড়ে যাবে।

দারিদ্র্য, অশিক্ষা, রোগ-ব্যাধি, সামাজিক অস্থিরতা ইত্যাদি এ অঞ্চলের উন্নয়নের পথে এখনও চ্যালেঞ্জ হিসেবে রয়ে গেছে বলে উল্লেখ করেন আমির হোসেন আমু।

তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক অর্থনীতিতে একটি উদীয়মান শিল্প খাত হলো এসএমই। ‌‌‌‌অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, কর্মসংস্থান, নারী ক্ষমতায়ন ও রপ্তানি আয়ে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। তাছাড়া আমাদের এসএমই পণ্যের গুণগতমান ভালো ও দাম কম। ফলে বিশ্ব বাজারের প্রতিযোগিতায় এ খাত এগিয়ে যাচ্ছে।

আমির হোসেন আমু বলেন, এ অঞ্চলের জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক নারী। ব্যবসা-বাণিজ্য ও শিল্পায়নে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ছে। টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এসএমই খাতকে নারীবান্ধব করা জরুরি। দেশগুলোর সম্মিলিত উদ্যোগ ও অংশগ্রহণ নিশ্চিত করলে এ সেক্টর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

প্রসঙ্গত, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নের মাধ্যমে এ অঞ্চলের ৮টি দেশের যোগাযোগ, ঐক্য ও পারস্পারিক সম্পর্ক সুসংহত করতে এ ফোরাম গঠন করা হয়। দ্বিতীয়বারের এ সামিটে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে বিশেষ অবদান রাখায় ১৫টি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মূখ্য সচিব রাজিভা সিংহা, এফবিসিসিআই সহসভাপতি মাহবুবুল আলম ও ফোরামের সদস্য দেশের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসূচক/এসএমএস/

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ