বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্সের চাঁদা গ্রহণের অনুমোদন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্সের চাঁদা গ্রহণের অনুমোদন

বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লোগো

বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির লোগো

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডকে চাঁদা গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

আজ সোমবার বিএসইসির ৫৬৪তম সভায় এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়। বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

বিএসইসি আরও জানা গেছে, কোম্পানিটির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬; চলবে ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ পর্যন্ত।

উল্লেখ্য, গত জুলাইয়ে বিএসইসির কাছ থেকে আইপিওর মাধ্যমে  শেয়ারবাজার থেকে ১৭ কোটি ৭০ লাখ টাকা উত্তোলনের অনুমোদন পায় বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স। তবে আইডিআরএর আপত্তির মুখে পড়ে গত বছরের ২৯ জুন কোম্পানিটির আইপিও স্থগিত করা হয়।

আইডিআরএর অভিযোগ ছিল, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স অনুমোদিত ও পরিশোধিত মূলধন বাড়ালেও এর জন্য তাদের অনুমোদন নেয়নি। এছাড়া কোম্পানির সংঘ স্মারক ও সংঘবিধিতে উল্লেখ করা মূলধনের সঙ্গে আইপিওর প্রসপেক্টাসে উল্লিখিত মূলধনের মিল নেই।

এর অাগে, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫৪৩তম সভায় এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ১ কোটি ৭৭ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১৭ কোটি ৭০ লাখ টাকা সংগ্রহ করবে। এজন্য ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে শেয়ার ইস্যুর অনুমোদন দিয়েছে কমিশন।

২০১৪ সালের ৩১ জুলাই শেষ হওয়া অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৭ পয়সা। নেট এসেট ভ্যালু (এনএভি) হয়েছে ১৫ টাকা ৬৫ পয়সা।

আইপিওর মাধ্যমে সংগ্রহ করা টাকার একাংশ মেয়াদী আমানত হিসেবে রাখবে কোম্পানি। একটি অংশ বিনিয়োগ করা হবে ট্রেজারি বন্ডে। এছাড়া কিছু অর্থ আইপিওর কাজে ব্যয় করা হবে।

উল্লেখ্য, কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে প্রাইম ফিন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

এর আগে, গত বছরের ২৯ জুন বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্সের আইপিও আবেদন স্থগিত করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

এই বিভাগের আরো সংবাদ