আজ গ্রামীণ ওয়ান ও এইমস মিউচ্যুয়াল ফান্ড মামলার রায়
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

আজ গ্রামীণ ওয়ান ও এইমস মিউচ্যুয়াল ফান্ড মামলার রায়

Mutual-Fund

মিউচ্যুয়াল ফান্ড লোগো

আজ ১৮ জানুয়ারি সোমবার এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচ্যুয়াল ফান্ড এবং গ্রামীণ মিউচ্যুয়াল ফান্ড: স্কিম ওয়ানের অবসায়ন সংক্রান্ত মামলার রায়। গতকাল রোববার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার পূর্ণাঙ্গবেঞ্চ মামলাটির শুনানি শেষে এই রায়ের দিন ধার্য করেন।

গত বৃহস্পতিবার মামলাটির শুনানির দিন ধার্য থাকলেও শুনানি অনুষ্ঠিত হয়নি। মাতৃবিয়োগের কারণ দেখিয়ে রিটকারীর আইনজীবী সময় চাওয়ায় এর আগের শুনানিও পিছিয়ে যায়।

মামলায় বিএসইসি ছাড়াও ইউনিটহোল্ডারদের পক্ষে আইনি লড়াই করছে ফান্ড দুটির ট্রাস্টি প্রতিষ্ঠান বিজিআইসি। একইসঙ্গে মামলায় আইনি লড়াই করছে ৫ ইউনিটহোল্ডার প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- ইউসিবিএল ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টস, ব্র্যাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজ এবং ভিআইপিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট। গত বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠান পাঁচটি মামলায় পক্ষভুক্ত হয়।

উল্লেখ, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ফান্ড দুটির ইউনিটহোল্ডার সম্মেলনে বেশিরভাগ ইউনিটহোল্ডার এ দুটি ফান্ডের অবসায়নের পক্ষে মত দেন। আর এ অনুসারে ফান্ড দুটির ট্রাস্টি অবসায়নের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। কিন্তু পুরো বিষয়টি এলোমেলো হয়ে যায় আলী জামান নামের জনৈক বিনিয়োগকারীর মামলায়। নির্দিষ্ট মেয়াদের পর মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ড অবসায়ন অথবা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরের আইনী বাধ্যবাধকতাকে চ্যালেঞ্জ করে তিনি হাইকোর্টে রিট করেন।

অভিযোগ উঠে, এই আইনী জটিলতা সৃষ্টির নেপথ্যে রয়েছে খোদ সম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান। এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচ্যুয়াল ফান্ডের তহবিল ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা এইমস অব বাংলাদেশ। এর আগে ক্লোজইন্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করে পুরো সেক্টরে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করে।

এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অবসায়ন জটিলতায় ইউনিটহোল্ডারদের স্বার্থরক্ষায় মাঠে নেমেছে ট্রাস্টি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি (বিজিআইসি)। প্রতিষ্ঠানটি এ সংক্রান্ত মামলায় পক্ষভুক্ত হয়েছে।

এর আগে, মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মেয়াদ শেষে তার অবসায়ন অথবা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তর করার সুযোগ রেখে গত বছর একটি গাইডলাইন প্রকাশ করে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক বিএসইসি। গাইডলাইন অনুসারে, মেয়াদ শেষের ছয় মাস আগে ইউনিটহোল্ডারদের নিয়ে বিশেষ সভার আয়োজন করবে সংশ্লিষ্ট ফান্ডের ট্রাস্টি। আর এ সভায় উপস্থিত ইউনিটহোল্ডারদের মতামতের ভিত্তিতে ঠিক করা হবে সংশ্লিষ্ট ফান্ড বন্ধ করে দেওয়া হবে নাকি সেটিকে বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তর করা হবে।

গত বছরের ২৯ জুন নির্ধারিত ১০ বছর মেয়াদ শেষ হওয়া আইসিবি ফার্স্ট, গ্রামীণ ওয়ান: স্কিম ওয়ান ও এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচ্যুয়াল ফান্ডের রূপান্তর-অবসায়নের সময়সীমা বেঁধে দেয় সংস্থাটি। যার পরিপ্রেক্ষিতে ইউনিটহোল্ডারদের সিদ্ধান্ত অনুসারে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বে-মেয়াদিতে রূপান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করে আইসিবি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ট্রাস্টি। আর একই সময়ের মধ্যে অবসায়নের প্রক্রিয়ায় ছিল এইমস ফার্স্ট ও গ্রামীণ ওয়ান স্কিম ওয়ান।

বিএসইসির বিধিকে চ্যালেঞ্জ করে বিনিয়োগকারী আলী জামান উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেন। এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৪ সেপ্টেম্বর বিচারপতি মির্জা হোসাইন হায়দার ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ মিউচ্যুয়াল ফান্ডের রূপান্তর বা অবসায়ন-সংক্রান্ত বিএসইসির নির্দেশনার কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত রাখার আদেশ দেন। একইসঙ্গে বিধির সঙ্গে সাংঘর্ষিক প্রজ্ঞাপন ও এর ভিত্তিতে জারি করা আদেশ কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়েও রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

পরবর্তীতে বিএসইসি এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলে গত ১ নভেম্বর হাইকোর্টের নির্দেশ বাতিল করে দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। একইসঙ্গে হাইকোর্ট বেঞ্চে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়। নির্ধারিত দিনে মিউচ্যুয়াল ফান্ডের রূপান্তর-অবসায়ন ইস্যুতে বিএসইসির প্রজ্ঞাপন ও এর আলোকে প্রদত্ত সর্বশেষ নির্দেশনা অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট বিভাগ। এতে আইসিবি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের রূপান্তর এবং গ্রামীণ ওয়ান: স্কিম ওয়ান ও এইমস ফাস্ট গ্যারান্টেড মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অবসায়ন প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে যায়।

পরবর্তীতে হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদন করে বিএসইসি। গত ১৭ ডিসেম্বর মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের অবসায়ন বা রূপান্তরের প্রক্রিয়া ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত রাখার নির্দেশনা দেন সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন চেম্বার বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। একই সঙ্গে ১০ জানুয়ারি আপিলের পূর্ণাঙ্গ শুনানির দিন ধার্য করেন।

এ আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানিয়েছিলেন, ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত কোনো মিউচ্যুয়াল ফান্ডের রূপান্তর বা অবসায়নের প্রক্রিয়া চলবে না। এছাড়া এ সময় পর্যন্ত স্টক এক্সচেঞ্জে ফান্ডগুলোর ইউনিট কেনাবেচায় বাধা অপসারণ হয়।

অর্থসূচক/এসইউএম/এআরএস/

এই বিভাগের আরো সংবাদ