৯০ জনেরই মস্তিষ্কের মৃত্যু হতে পারে!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

৯০ জনেরই মস্তিষ্কের মৃত্যু হতে পারে!

ব্যথা নাশক ওষুদের পরীক্ষামূলক প্রয়োগে ফ্রান্সে এক জনের ‘মস্তিষ্কের মৃত্য’ হয়েছে। আশঙ্কা জনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছে পাঁচজন। এরা ছাড়াও পরীক্ষার জন্য আরও যে ৮৪ জনের শরীরে ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়েছে তাদের জন্য নেই কোনো ‘এন্টিডোট’ বা প্রতিষেধক।

যাদের ওপর পরীক্ষা চালানো হয়েছে তারা ধীরে ধীরে ওই ব্যথা নাশক ওষুধের চূড়ান্ত প্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হতে পারে। তাদের আশঙ্কা, সেটা হতে পারে মস্তিষ্কের মৃত্যুর মতোই ঘটনা।

বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, যাদের ওপর পরীক্ষা চালানো হয়েছে তারা ধীরে ধীরে ওই ব্যথা নাশক ওষুধের চূড়ান্ত প্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হতে পারে। তাদের আশঙ্কা, সেটা হতে পারে মস্তিষ্কের মৃত্যুর মতোই ঘটনা।

রেনিস শহরের ওই হাসপাতলটির প্রধান নিউরো সাইনটিস্ট জানান, ব্যথা নাশক ওষুধটি যারা তৈরি করেছে তারা ওষুধের বিষক্রিয়া কাটাতে কোনো প্রতিষেধক তৈরি করেনি।

তিনি জানান, পরীক্ষার জন্য আরও যে ৮৪ জনের শরীরে ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়েছে তাদের জন্য নেই কোনো ‘এন্টিডোট’ বা প্রতিষেধক।

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বিবিসির এক খবরে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার ফ্রান্সভিত্তিক বায়োট্রায়াল কোম্পানিটির এই মুখ খাওয়ার ওষুধটি শহরের ৯০ জন স্বেচ্ছাসেবীর ওপর প্রয়োগ করা হয়।

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গাঁজা দিয়ে তৈরি ব্যাথা নাশক সেই ওষুধের অনুমোদনের আবেদন ইতোমধ্যে প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। সেই সাথে ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মারিসল ওঁরানে জানান,  হাসপাতালে যারা ভর্তি আছে তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ব্যক্তিগতভাবে ঘটনাটিকে তিনি মর্মান্তিক বলেও উল্লেখ করেছেন।

তবে কোম্পানির তরফে দাবি করা হয়েছে, ওষুধ তৈরির আন্তর্জাতিক নিয়ম মেনেই সব কাজ করা হয়েছে।

বিবিসির স্থানীয় প্রতিনিধি হুগো শফিল্ড জানান, প্রতিবছর এমন হাজারো পরীক্ষা করা হয় , হাজারো ভলিন্টিয়ার অংশগ্রহণ করে। এমন ঘটনা সচারাচর ঘটেনা।

এই বিভাগের আরো সংবাদ