‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত লড়াই চলবে’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » জাতীয়

‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত লড়াই চলবে’

একাত্তরের সকল যুদ্ধাপরাধী এবং ফেরত পাঠানো ১৯৫ পাকিস্তানি সেনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত  ‘লড়াই’ চালিয়ে যাওয়ার শপথ করেছেন মুক্তিযোদ্ধাসহ নানা শ্রেণিপেশার মানুষ।

ছবি: সংগৃহিত

ছবি: সংগৃহিত

আজ বুধবার আপিল বিভাগের চূড়ান্ত রায়ে যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল থাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক গণঅবস্থান কর্মসূচিতে নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান এই এ শপথ পড়ান।

শপথে তিনি বলেন, “আমরা শপথ করছি, স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি- রাজাকার, আল বদর, জামায়াতে ইসলামীসহ যারা অপরাধ করেছিল, সেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত এবং ১৯৫ জন পাকিস্তানি সেনা, যারা ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের ৩০ লাখ মানুষকে হত্যা করেছে, দুই লাখ মা-বোনকে ধর্ষণ করেছে, আমাদের সম্পদ লুট করেছে, অগ্নিসংযোগ করেছে- সেই পাকিস্তানি সৈন্যদের বিচার করতে না পারব; ততদিন পর্যন্ত আমাদের লড়াই অব্যাহত থাকবে।”

‘আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার’ ব্যানরে আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচির আহ্বায়ক নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।

শপথ শেষে তিনি ৭ থেকে ৯ জানুয়ারি যুদ্ধাপরাধী ও পাকিস্তানি সেনাদের বিচারের দাবিতে গণসংযোগ, ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের জাতীয় কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ, ১৭ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলন, ২০ জানুয়ারি ‘শ্রমিক-কর্মচারী-পেশাজীবী-মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের’ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সংহতি প্রকাশ ও ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশের ঘোষণা দেন।

গণঅবস্থান কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, জাসদ নেত্রী শিরীন আখতার, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের সহসভাপতি ইসমত কাদির গামা, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী প্রমুখ।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ