পুঁজিবাজার সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা পেলেন বিনিয়োগকারীরা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » এক্সপো নিউজ

পুঁজিবাজার সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা পেলেন বিনিয়োগকারীরা

‘আমি কিছু দিন আগে পুঁজিবাজারে শেয়ার কিনেছি। কিন্তু বাজার সম্পর্কে আমার জানা শুনা অনেক কম। তাই জানার আগ্রহ থেকেই মেলায় আসা। মেলায় অনেক স্টল ঘুরে কোম্পানিগুলো বিভিন্ন সেবা সম্পর্কে অনেক কিছু জানাতে পারলাম। যা ভবিষ্যতে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বেশ কাজে দেবে’। এভাবেই কথাগুলো বলেছিলেন উত্তরা থেকে ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপোতে আসা বেসরকারি চাকরিজীবী মনিরুজ্জামান।

ছবি অর্থসূচক

ছবি অর্থসূচক

তিনি বলেন, বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষ করে যারা নতুন বিনিয়োগকারী তাদের জন্য এই মেলা বেশ কাজে দিবে। আমরা চাই প্রতিবছরই এমন মেলার আয়োজন করা হোক।

দেশের প্রথম বিজনেস নিউজ পোর্টাল অর্থসূচক আয়োজিত বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপোর আজ ছিল তৃতীয় ও সমাপনী দিন। শেষ দিনে বিনিয়োগকারী-দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ছিল ব্যাপক।

এক্সপোতে অংশ নেওয়া বিভিন্ন ব্রোকারহাউজ, মার্চেন্ট ব্যাংক, অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি ও পুজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির স্টলগুলোতে ছিল বিনিয়োগকারীদের উপচে পড়া ভিড়। বিশেষ করে নতুন বিনিয়োগকারীরা এই এক্সপোতে এসে পুঁজিবাজার সম্পর্কে স্বচ্ছ ইতিবাচক ধারণা পেয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি) সম্মেলন কেন্দ্রে এই এক্সপো শুরু হয়েছে। আজ এক্সপোর তৃতীয় ও সমাপনী দিন চলছে।

ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপোতে ইবিএল সিকিউরিটিজে বিও অ্যাকাউন্ট খেলার সময় কথা হয় রাজীব রাহাদের সঙ্গে। তিনি বলেন,পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের ইচ্ছ অনেক দিন থেকে। কিন্তু বাজার সম্পর্কে তেমন কোন ধারণা ছিল। এই মেলায় আসার পর পুঁজিবাজার সম্পর্কে বেশ ধারণা পেলাম। পরে সিদ্ধান্ত নিলাম দ্রুত পুঁজিবাজারে আসবে। তাই মেলায় আজ বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও অ্যাকাউন্ট) খুলেছি।

শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক সিকিউরিটিজ লিমিটেডের স্টলের সামনে কথা হয় সেগুনবাগিচা এলাকার ব্যবসায়ী সাদেকুল ইসলামের সাথে। তিনি বলেন, ১৯৯২ সাল থেকে আমি পুঁজিবাজারের বিনিয়োগ করছি। আমার দেখা এটাই প্রথম যেখানে বিভিন্ন ব্রোকারহাউজ, মার্চেন্ট ব্যাংকসহ পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কোম্পানি এক সঙ্গে মেলায় অংশ নিয়েছে। এর ফলে বিনিয়োগকারী পুঁজিবাজার সম্পর্কে একটা স্বচ্ছ ধারণা পাবে। বিনিয়োগের আগে অবশ্যই পুঁজিবাজার সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা দরকার। আর এই মেলার মাধ্যমে এই কাজটি করলো অর্থসূচক।

এক্সপোতে পুঁজিবাজারের প্রায় সব ধরনের স্টেকহোল্ডারের প্রতিনিধিত্ব রয়েছে। এতে ব্রোকারহাউজ, মার্চেন্ট ব্যাংক, অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি, ক্রেডিটরেটিং এজেন্সি, অডিটফার্ম এবং তালিকাভুক্ত কোম্পানিসহ বিভিন্ন স্টেক হোল্ডার অংশ নিয়েছে।

এক্সপোতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৬৫টি স্টল রয়েছে। এসব স্টলে কোম্পানিগুলো তাদের প্রোডাক্ট ও সেবা প্রদর্শন করছে।

এক্সপোতে একটি স্টলে কোম্পানি আইন, ব্যাংক কোম্পানি আইন, সিকিউরিটিজ আইন, শেয়ারবাজার ও অর্থনীতি সংক্রান্ত বইয়ের সমাবেশ রয়েছে। জ্ঞানের পরিধি বাড়ানো ও বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত নির্ভুল করার জন্য কার্যকরী হতে পারে এসব বই।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাকলাইন বলেন, পুজিবাজার সম্পর্কে জানার আগ্রহ থেকেই এই এক্সপোতে আসা। এক্সপোতে এসে বিভিন্ন কোম্পানির সেবা সম্পর্কে জানতে পারলাম। সেমিনারে অংশ নিয়ে পুজিবাজার সম্পর্কে আমার একটা স্বচ্ছ ধারণা গ্রোফ হয়েছে। যা আমার জন্য খুব দরকার ছিল। কারণ আমি ক্যাপিটেল মার্কেটে ক্যারিয়ার গড়তে চাই। আমি চাই এ রকম এক্সপো প্রতিবছরই আয়োজন করা হোক।

এক্সপোতে অর্থনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, ব্রোকার, মার্চেন্ট ব্যাংকারসহ পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন সেমিনারে অংশ নিচ্ছেন।

বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপো ২০১৫ এর সহযোগী হিসেবে রয়েছে ডিএসই ব্রোকারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিবিএ), বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকারস অ্যাসোসিয়েশন (বিএমবিএ), বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ক্যাপিটাল মার্কেট (বিআইসিএম), দ্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড একাউন্টেন্ট অব বাংলাদেশ (আইসিএবি), দ্য ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট একাউন্টেন্ট বাংলাদেশ (আইসিএমএবি), ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি)।

অর্থসূচক/মাইদুল/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ