‘বৈষম্য বাড়লে চরমপন্থী হবে মুসলিমরা’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

‘বৈষম্য বাড়লে চরমপন্থী হবে মুসলিমরা’

অস্ট্রেলিয়ায় মুসলমানরা অমুসলমানদের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বেশি বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। এভাবে বৈষম্য চলতে থাকলে কম বয়সী মুসলমান শিশুরা খুব সহজেই চরমপন্থী হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়ায় মুসলমানরা অমুসলমানদের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বেশি বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। ছবি: বিবিসি

অস্ট্রেলিয়ায় মুসলমানরা অমুসলমানদের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বেশি বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। ছবি: বিবিসি

দেশটিতে মুসলমানদের ওপর চালানো এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে।

এই জরিপে প্রায় ৬০০ মুসলমান অংশগ্রহণ করে। জরিপটি পরিচালনা করেছে ওয়েস্টার্ন সিডনি ও চার্লস স্টার্ট বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামিক সায়েন্সেস এন্ড রিসার্চ একাডেমি।

জরিপে বলা হয়, মুসলমানরা বৈষম্যের শিকার হওয়ার পাশাপাশি নানা ধরনের ধর্মীয় অসহিষ্ণুতারও মুখোমুখি হচ্ছেন।

জরিপে অংশগ্রহণকারী ৬০ শতাংশ মুসলমান বলেন, সেখানে বসবাসকারী যে কেউ কোনো না কোনোভাবে ইসলামভীতির অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে।

সম্প্রতি সিডনিতে ইসলামের ওপর আয়োজিত এক সম্মেলনে গবেষকরা এসব কথা বলেন। ছবি: বিবিস

সম্প্রতি সিডনিতে ইসলামের ওপর আয়োজিত এক সম্মেলনে গবেষকরা এসব কথা বলেন। ছবি: বিবিস

সম্প্রতি সিডনিতে ইসলামের ওপর আয়োজিত এক সম্মেলনে গবেষকরা বলেন, এ ধরনের বৈষম্য চলতে থাকলে কম বয়সী মুসলমান শিশুরা খুব সহজেই চরমপন্থী হয়ে উঠতে পারে।

তারপরও ৮৫ শতাংশ মসলমান  মনে করেন, অস্ট্রেলিয়ায়  মুসলমান ও অমুসলমানদের মধ্যে সম্পর্ক খুবই সৌহার্দ্যপূর্ণ।

গবেষণায় নেতৃত্ব দেন অধ্যাপক কেভিন ডান। তিনি বলেন, অন্য সমীক্ষার সঙ্গে এই জরিপের মিল রয়েছে। ওই সব জরিপেও দেখা গেছে, অস্ট্রেলিয়ায় ইসলামভীতি প্রচণ্ড।

 নতুন জরিপের কিছু উল্লেখযোগ্য তথ্য:

১. ৯৭ শতাংশ মুসলমান মনে করেন, বিভিন্ন ধর্ম ও সংস্কৃতির মানুষ একসঙ্গে মিলেমিশে বসবাস করা উত্তম।

২. ৫৭ শতাংশ মুসলমান বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন।

৩. ৬২ শতাংশ মুসলমান অফিসে বা চাকরির সন্ধানের সময় বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন।

৪. ৮৬ শতাংশ মুসলমান মনে করেন, সিডনিতে মুসলমান ও অমুসলমানের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ