সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে আনার প্রক্রিয়া জোরদারের আহ্বান
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ব্যাংক-বিমা

সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে আনার প্রক্রিয়া জোরদারের আহ্বান

বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়াতে ব্যাংক সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার প্রক্রিয়া জোরদারের আহ্বান জানিয়েছেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব ড.এম. আসলাম আলম।

Banking Fair3

মঙ্গলবার রাজধানীর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ব্যাংকিং মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান। ছবি: মহুবার রহমান

আজ মঙ্গলবার বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ব্যাংকিং মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। ৫ দিনব্যাপী এই ব্যাংকিং মেলার উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান।

আসলাম আলম বলেন, বিভিন্ন জায়গায় যে বিষয়ে আমাদের সমালোচনা শুনতে হয়, তা হল বিনিয়োগ ও জিডিপি প্রবৃদ্ধি নিয়ে। আমাদের প্রবৃদ্ধির বর্তমান হার দারিদ্র বিনাশে যথেষ্ট নয়। প্রবৃদ্ধির এ হারকে ৮ শতাংশে নিয়ে যেতে হবে।

তিনি বলেন, দেশে বিনিয়োগ বাড়াতে হলে বেসরকারি খাতকে অনেক এগিয়ে আসতে হবে। এজন্য তাদেরকে সিঙ্গেল ডিজিটে সুদ দেওয়া প্রয়োজন। যা ব্যাংকগুলো এখনও দিতে পারছে না। এ নিয়ে আমরা যে কাজ করছি তা আরও জোরদার করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ব্যাংকিং খাতে প্রযুক্তির ছোঁয়া লাগলেও ইন্টারনেট ভিত্তিক ব্যাংকিং ও কার্ড সেবায় আমরা এখনও পিছিয়ে আছি।

এর আগে গভর্নর ড. আতিউর রহমান মেলার উদ্বোধন করতে গিয়ে জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতি গড়ে তোলার জন্যে অন্তর্ভূক্তিমূলক অর্থায়নের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মেলার প্রধান সমন্বয়কারী বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. বিরূপাক্ষ পাল।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস.কে. সুর চৌধুরীর সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান। এছাড়া বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ও অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ৫ দিনব্যাপী মেলাটি চলবে আগামী ২৮শে নভেম্বর পর্যন্ত। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে। যাসর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত। মেলায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক ছাড়াও দেশি-বিদেশি ৫৬টি ব্যাংক, ৬টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ৭টি আর্থিক সেবাসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। দর্শনার্থীদের জন্য মেলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক শিক্ষা, টাকা জাদুঘর, বাংলাদেশ সিকিউরিটি প্রিন্টিং প্রেস (টাকা তৈরির মেশিন), বিভিন্ন প্রকাশনা, স্মারক মুদ্রা ও নোট ক্রয়, জনসাধারণের জন্য সেবা ও অভিযোগ কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

অর্থসূচক/এমএইচ

এই বিভাগের আরো সংবাদ