তলবে সাড়া দিয়ে পদ্মায় পাক হাইকমিশনার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রাজনীতি

তলবে সাড়া দিয়ে পদ্মায় পাক হাইকমিশনার

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তলবে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় হাজির হয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানের হাইকমিশনার সুজা আলম। আজ সোমবার দুপুরে ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রসচিব মো. মিজানুর রহমানের সঙ্গে দেখা করেছেন তিনি।

pakistan_high_commissioner

পাকিস্তান হাইকমিশনের ওয়েবসাইট থেকে নেওয়া।

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বিএনপির নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী ও জামায়াতে ইসলামীর নেতা আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের ফাঁসি নিয়ে পাকিস্তান সরকারের প্রতিক্রিয়ার প্রতিবাদে গতকাল রোববার তাকে তলব করা হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে তার কাছে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদপত্র দেওয়া হবে।

সাকা চৌধুরী ও মুজাহিদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার পর গতকাল এক বিবৃতিতে এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে পাকিস্তান সরকার। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ওই উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভের সঙ্গে বিএনপির নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াতের নেতা আলী আহসান মুজাহিদের দুর্ভাগ্যজনক মৃত্যুদণ্ডের ঘটনা লক্ষ করেছি। ঘটনায় আমরা গভীরভাবে অসন্তুষ্ট। বাংলাদেশে ১৯৭১ সালের ঘটনাবলি (মহান মুক্তিযুদ্ধ) নিয়ে ত্রুটিপূর্ণ বিচার প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের যে প্রতিক্রিয়া আমরা লক্ষ করছি, তা আগের মতো আবার গুরুত্ব দিচ্ছি।

বিবৃতিতে পাকিস্তান বলেছে, বাংলাদেশে ১৯৭৪ সালের ৯ এপ্রিল স্বাক্ষরিত বাংলাদেশ-ভারত-পাকিস্তান চুক্তির মনোভাবের ভিত্তিতে একটি মীমাংসা প্রয়োজন। ১৯৭১ সালের বিষয়গুলোকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাওয়াই এই চুক্তির উদ্দেশ্য ছিল।

চুক্তিটি অনুসরণ করলে আঞ্চলিক রাজনীতিতে বাংলাদেশের ‘সম্প্রীতি ও সুনাম’ আরও বাড়ত বলে উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।

এছাড়া পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান গতকাল দেশটির জিয়ো টেলিভিশন দেওয়া এক বিবৃতিতে বলেন, ১৯৭১ সালে কেউ পাকিস্তানের পক্ষে কাজ করলে তার বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়া বন্ধ করার এখনই উপযুক্ত সময়।

মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ডে উদ্বেগ প্রকাশ করে পাকিস্তান জামায়াতের ইসলামির সিরাজুল হক বলেন, পাকিস্তানের আদর্শের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করার কারণেই মুজাহিদকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ