যুক্তরাষ্ট্রের হোটেলে পুতিনের সাবেক সহযোগীর মরদেহ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রের হোটেলে পুতিনের সাবেক সহযোগীর মরদেহ

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সাবেক সহযোগী মিখাইল লেসিনের (৫৭) মরদেহ যুক্তরাষ্ট্রের একটি হোটেলে পাওয়া গেছে। রাশিয়ার তথ্যমন্ত্রী এবং গণমাধ্যম সংস্থা গ্যাজপ্রম-মিডিয়া হাউজেরও প্রধানের দায়িত্বও পালন করেছিলেন তিনি।

Mikaile Lesin

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সাবেক সহযোগী ও দেশটির সাবেক তথ্যমন্ত্রী মিখাইল লেসিন।

রাশিয়ান সংবাদ সংস্থা রিয়া-নভস্তি ও তাসের বরাত দিয়ে আজ শনিবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে ওয়াশিংটন ডিসির হোটেল দ্যুপন্টে মিখাইল লেসিনের মরদেহ পাওয়া গেছে। লেসিন স্ত্রী, এক ছেলে এবং এক মেয়ে রয়েছে তার।

লেসিনের পরিবারের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, হৃদরোপে আক্রান্ত হয়ে লেসিনের মৃত্যু হয়েছে।

রাশিয়ার এই সাবেক মন্ত্রীর মৃত্যুর কারণ উদঘাটনের জন্য তদন্ত শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশ।

রাশিয়ার গণমাধ্যমে এবং ক্ষমতাবলয়ের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত লেসিন তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ২০০৪-০৯ সাল পর্যন্ত পুতিনের গণমাধ্যমবিষয়ক উপদেষ্টা ছিলেন। এসময় তার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে রাশিয়ায় টেলিভিশন চ্যানেল ‘রাশিয়া টুডে (আরটি)’র সৃষ্টি হয়।

লেসিনের মৃত্যুর খবর জানার পর এক বিবৃতিতে পুতিন বলেন, আধুনিক রাশিয়ান গণমাধ্যম সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন মিখাইল লেসিন।

গ্যাজপ্রম-মিডিয়া হাউজ থেকে পদত্যাগের পর গত বছরের শেষদিকে লস এঞ্জেলসে বাড়ি কেনেন লেসিন।

রাশিয়ান সরকারি চাকরিজীবী হয়েও লেসিন কী করে ২৮ মিলিয়ন ডলারে বাড়ি ও সম্পত্তি কিনলেন- তা তদন্ত করতে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন মিসিসিপির সিনেটর রজার উইকার।

যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিস ডিপার্টমেন্টকে লেখা এক চিঠিতে উইকার এসবের পেছনে ‘যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আছে’ এমন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান জড়িত থাকতে পারে বলেও সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন।

লেসিনের মালিকানাধীন একটি রেডিওতে গত বছর রাশিয়ার বিরোধীদলের নেতা এলেক্সি নাভালনির একটি সাক্ষাৎকার বাতিল হয়।

সেই ঘটনার উল্লেখ করে উইকার চিঠিতে লিখেছিলেন, রাশিয়ার মুক্ত গণমাধ্যমের টুঁটি চেপে ধরতে ক্রেমলিনের নীতি বাস্তবায়নে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন লেসিন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ