টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বিবেচনা হচ্ছে: অর্থমন্ত্রী
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » জাতীয়

টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বিবেচনা হচ্ছে: অর্থমন্ত্রী

Abul Mal Abdul Muhit

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। ফাইল ছবি

সরকারি চাকরিজীবীদের অষ্টম বেতন কাঠামোতে টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বিবেচনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বৃহস্পতিবার সকালে সচিবালয়ে  প্রকৌশলী-কৃষিবিদ-চিকিৎসক (প্রকৃচি) ও বিসিএস সমন্বয় কমিটির সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি একথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড নিয়ে বাইরের আলোচনা শেষ, এখন সরকারে আলোচনা করব। এটা অর্থমন্ত্রণালয়ের একার কাজ নয়, আরও আলাপ-আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বৈঠকে প্রকৃচি ও বিসিএস সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, জাতীয় বেতনস্কেল ২০১৫ এ সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেল বন্ধ করে দেওয়ায় কর্মকর্তাদের মধ্যে হতাশার জন্ম দেবে এবং কর্মক্ষেত্রে যথাযথ দায়িত্ব পালনের উৎসাহ হারিয়ে ফেলবেন। সিলেকশন গ্রেড বন্ধ করায় বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে পদ অবনমন হয়েছে। শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তারা পদোন্নতির পদ হিসেবে ৪র্থ গ্রেডে অধ্যাপক পদ লাভ করেন। এরমধ্যে থেকে ৫০ ভাগ অধ্যাপক সিলেকশন গ্রেড হিসেবে ৩য় গ্রেডে উন্নীত হন। সিলেকশন গ্রেড বন্ধ করায় অধ্যাপকরা ৩য় গ্রেডে উন্নীত হতে পারবেন না। ফলে ৪র্থ গ্রেড থেকেই তাদের অবসরে যেতে হবে। অথচ এ ক্যাডারের শীর্ষপদ ১ম গ্রেডের। ২০১৫ বেতনস্কেল অনুযায়ী শিক্ষা ক্যাডারের কোনো কর্মকর্তাই আর শীর্ষ পদ লাভ করতে পারবেন না।

বৈঠকে প্রকৃচির আহ্বায়ক ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সভাপতি আফম বাহাউদ্দিন নাছিম উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, গত ২৪ অক্টোবর এক সমাবেশে বেতনস্কেল সিলেকশন গ্রেড এবং টাইমস্কেল পুনর্বহালসহ  ৬ দফা দাবি জানায় প্রকৌশলী-কৃষিবিদ-চিকিৎসক (প্রকৃচি)-বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) সমন্বয় কমিটি। ৮ নভেম্বরের মধ্যে দাবি মানা না হলে পরবর্তীতে আরও কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা করা হবে বলেও সমাবেশে জানানো হয়।

এছাড়াও সরকারি চাকরিজীবীদের বিভিন্ন সংগঠন অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বহাল দাবি জানায়।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ