৩ নতুন প্রোডাক্টে পুনঃঅর্থায়ন; সর্বোচ্চ ঋণসীমা ১৫ কোটি
বৃহস্পতিবার, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ব্যাংক-বিমা

৩ নতুন প্রোডাক্টে পুনঃঅর্থায়ন; সর্বোচ্চ ঋণসীমা ১৫ কোটি

bangladesh-bank-logoনবায়নযোগ্য জ্বালানি ও পরিবেশবান্ধব অর্থায়নযোগ্য খাতে পুনঃঅর্থায়ন স্কিমের পরিধি বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতদিন ১০টি খাতে মোট ৪৭টি প্রোডাক্ট উৎপাদনে বাংলাদেশ ব্যাংকের পুনঃঅর্থায়ন তহবিল থেকে ব্যাংকগুলো ঋণ দিতে পারতো। এখন আরও ৩টি নতুন প্রোডাক্টকে এ তহবিলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

প্রোডাক্টগুলো হলো-সেন্ট্রাল এফ্লুয়েন্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্ট (সিএফটিপি), ওয়েস্ট হিট রিকভারি সিস্টেম ও ব্যবহৃত লেড এসিড ব্যাটারি পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণ। এতে এখন মোট প্রোডাক্টের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০টি।

বুধবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাসটেইনেবল ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্ট থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বাংলাদেশে কার্যরত সব তফসিলী ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও পরিবেশবান্ধব কার্যক্রমের পরিধি সম্প্রসারণ ও ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনায় বিশদ পর্যালোচনান্তে ৩টি প্রোডাক্টকে পুনঃঅর্থায়ন স্কিমে অন্তর্ভূক্ত করা হলো। তবে একক প্রকল্পে সর্বোচ্চ ঋণসীমা ১৫ কোটি টাকার বেশি হবে না।অর্থাৎ সেন্ট্রাল এফ্লুয়েন্ট ট্রিটমেন্ট প্লান্টের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ঋণসীমা ১৫ কোটি, ওয়েস্ট হিট রিকভারি সিস্টেমে ৫ কোটি এবং ব্যবহৃত লেড এসিড ব্যাটারি পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণে ৫ কোটি টাকা। ৩টি প্রোডাক্টের সবগুলোর ক্ষেত্রে সুদের হার হবে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ।

উল্লেখ, নবায়নযোগ্য জ্বালানি পরিবেশবান্ধব খাতে বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ২০০ কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছ থেকে ব্যাংক রেটে (৫ শতাংশ সুদে) পুনঃঅর্থায়ন নিয়ে ব্যাংকগুলো প্রকল্প ভেদে গ্রাহক পর্যায়ে সর্বোচ্চ ৯ থেকে ১১ শতাংশে ঋণ বিতরণ করতে পারবে। এ পুনঃঅর্থায়ন স্কিমের আওতায় ৫০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১৫ কোটি টাকার ঋণ সুবিধা দেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ