প্রতিমা বিসর্জন আজ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » বিবিধ

প্রতিমা বিসর্জন আজ

দশমী বিহিত পূজার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে পাঁচ দিনের শারদীয় দুর্গোৎসবের বর্ণিল আয়োজন। গতকাল বৃহস্পতিবার শেষ হয়েছে মা দুর্গার পূজা-অর্চনা। ঢাক-কাঁসরের বাদ্য-বাজনা, রাত উজ্জ্বল করা আরতি ও পূজারি-ভক্তদের পূজা-অর্চনার মধ্য দিয়ে প্রতিমা বিসর্জন হবে আজ শুক্রবার। সব পূজামণ্ডপের বাতাসেই বইছে বিষাদের ছায়া। সব ধর্ম-বর্ণের মানুষের উৎসবে রূপ নেওয়া সার্বজনীন দুর্গাপূজা শেষ হচ্ছে সম্প্রীতির আহ্বানে।

DurgaPuja

গতকাল বৃহস্পতিবার দেশের সব মণ্ডপে দেবীর দশমী বিহিত পূজার আয়োজন করা হয়। রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দরে দশমী বিহিত পূজার একটি অংশ। ছবি: মহুবার রহমান

হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পাঁচ দিনের শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হবে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে। মর্তলোকে পূজিত হয়ে মা দুর্গা ফের স্বর্গলোকে বিদায় নেবেন আজ। অশ্রুসজল চোখে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ বিসর্জন দেবেন দেবী প্রতিমা। সেই সঙ্গেও ভাঙবে পাঁচ দিনের সার্বজনীন মিলনমেলা।

বিসর্জনের উদ্দেশ্যে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দির মেলাঙ্গন থেকে কেন্দ্রীয় বিজয়া শোভাযাত্রা বেরোবে বিকেল ৪টায়। এর আগে রাজধানীর ২২৫ পূজামণ্ডপের অধিকাংশই এসে জমা হবে পলাশীর মোড়ে। সেখান থেকে সম্মিলিত বাদ্য-বাজনা, মন্ত্রোচ্চারণ ও পূজা-অর্চনার মধ্য দিয়ে শুরু হবে বিজয়ার শোভাযাত্রা। এরপর সদরঘাটের ওয়াইজঘাটের বুড়িগঙ্গা নদীতে একে একে বিসর্জন দেওয়া হবে প্রতিমা।

রাজধানীর বনানী, উত্তরা, ধানমণ্ডিসহ কয়েকটি পূজামণ্ডপ থেকে প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হবে আশুলিয়ার বিআইডব্লিউটিএ ঘাটে। গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা পরিষদের উদ্যোগে আজ সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলবে নানা অনুষ্ঠান। এরপর দুপুর ২টায় বিসজর্নের জন্য প্রতিমা নেওয়া হবে আশুলিয়ার তুরাগ পাড়ে। আজ সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত সারাদেশে সুবিধামতো সময়ে বিজয়ার শোভাযাত্রা সহকারে প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হবে। বিসর্জন শেষে ভক্তরা শান্তিজল গ্রহণ করবেন।

শারদীয় দুর্গোৎসবে গতকাল একই দিনে মহানবমী ও বিজয়া দশমী অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে তিথি অনুযায়ী মহানবমী ও বিজয়া দশমী একই দিনে পড়লেও এর আগেই সারাদেশে আজ শুক্রবারই বিজয়া শোভাযাত্রা সহকারে প্রতিমা বিসর্জনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। অবশ্য বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত পঞ্জিকামতে আজ শুক্রবার সকালে বিজয়া দশমী ও প্রতিমা বিসর্জন হওয়ায় রামকৃষ্ণ মিশন পূজামণ্ডপসহ অনেক মন্দির ও পূজামণ্ডপ এই সময়সূচিই অনুসরণ করবে। এ হিসেবে এসব মন্দিরে আজ প্রতিমা বিসর্জন ছাড়াও বিজয়া দশমীর ধর্মীয় আয়োজনও থাকছে।

গতকাল সকাল ৭টা ৩৩ মিনিটের মধ্যে দেবীর মহানবমী কল্পারম্ভ ও মহানবমী বিহিত পূজা অনুষ্ঠিত হয়। পূজা শেষে যথারীতি পুষ্পাঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ ও সন্ধ্যায় ভোগ আরতি ছিল। সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে দেবীর দশমী বিহিত পূজা ও দর্পণ বিসর্জন দেওয়া হয়। তবে রামকৃষ্ণ মিশন পূজামণ্ডপসহ অনেক মন্দির ও পূজামণ্ডপে গতকাল সকাল ৭টা ৩৩ মিনিটের পর মহানবমী কল্পারম্ভ ও মহানবমী বিহিত পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

গতকাল মহানবমী ও বিজয়া দশমীর দিনে দেবী দুর্গাকে বিদায়ের আয়োজনে বিষণ্ন মন নিয়েই উৎসবে মেতেছিলেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরাসহ সব ধর্মের মানুষ। দিনটির প্রধান আকর্ষণ ছিল মণ্ডপে মণ্ডপে আরতি প্রতিযোগিতা। সন্ধ্যা ও রাতকে উজ্জ্বল করে ভক্তরা মেতে উঠেছিলেন নানা ঢঙে আরতি নিবেদনে। সেই সঙ্গে ছিল দিনভর পুরোহিতদের চণ্ডীপাঠ ও মণ্ডপে মণ্ডপে ভক্তদের কীর্তন বন্দনা।

আগের দিনের মতো গতকালও রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের পূজামণ্ডপগুলোতে মানুষের ঢল নেমেছিল। মণ্ডপে মণ্ডপে মানুষের উপচেপড়া ভিড় ছিল। হাজার হাজার ভক্ত, পূজারি ও দর্শনার্থী মণ্ডপগুলোতে ঘুরে ঘুরে প্রতিমা দর্শন করেছেন। কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কোথাও কোথাও মণ্ডপ-সংলগ্ন সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয় বিকেল থেকেই। এ কারণে নগরীর বিভিন্ন স্থানে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। রাতে যানজট অসহনীয় মাত্রায় পৌঁছলে পূজারিদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

এদিকে বিজয়া দশমী উপলক্ষে গতকাল ছিল সরকারি ছুটি। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারসহ স্যাটেলাইট টেলিভিশনগুলো বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচার করেছে। সংবাদপত্রগুলো প্রকাশ করেছে বিশেষ সংখ্যা ও নিবন্ধ। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বঙ্গভবনে শারদীয় দুর্গোৎসব ও বিজয়া দশমী উপলক্ষে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ