মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছেন মুলার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » খেলাধুলা

মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছেন মুলার

আলঝেইমার রোগে আক্রান্ত হয়ে স্তব্ধ হয়ে গেছেন জার্মানির ফুটবলের প্রাণপুরুষ জার্ড মুলার। সাবেক এই গোলমেশিন বর্তমানে মানসিক ভারসাম্যহীন জীবন-যাপন করছেন। আগামী ৩ নভেম্বর ৭০ বছরে পা দিবেন  মুলার।

জার্মানির ফুটবলের প্রাণপুরুষ জার্ড মুলার

জার্মানির ফুটবলের প্রাণপুরুষ জার্ড মুলার

তার অসুস্থতার সংবাদে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বায়ার্ন মিউনিখের খেলোয়াড়-কর্মকর্তাসহ গোটা জার্মানবাসীর মাঝে। তাদের মর্মাহত হৃদয়ের কষ্ট প্রতিধ্বনিত হয়েছে জার্মানির ৮০ দশকের তারকা ও বর্তমান বায়ার্ন সভাপতি কার্ল-হাইঞ্জ রুমেনিগের কণ্ঠে।

তিনি বলেছেন, “ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় জার্ড মুলার। তার কল্যাণেই বায়ার্ন মিউনিখ এবং জার্মানি বর্তমান অবস্থায় আসতে পেরেছে।”

গত শতাব্দীর ৭০ এর দশকে দুনিয়া মাত করা ফুটবলার জার্ড মুলার। ১৯৭০ বিশ্বকাপের ১০ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পান তিনি।

১৯৭২ সালে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন্সশিপে পশ্চিম জার্মানির শিরোপা জয়ে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন মুলার। ফাইনালে দুটিসহ মোট ৪ গোল করে টুর্নামেন্টে সেরা গোলদাতার পুরস্কার পান মুলার।

১৯৭৪ সালে নিজ দেশে আয়োজিত বিশ্বকাপে করেন মাত্র ৪ গোল। তবে গোলগুলো ছিল খুবই মূল্যবান। ফাইনালে ইয়োহান ক্রুইফের নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে পশ্চিম জার্মানির জয়সূচক গোলটি আসে মুলারের পা থেকে। এই ১৪ গোল নিয়ে দীর্ঘদিন বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি গোল করার রেকর্ড নিজের মুঠোয় রাখেন তিনি।

শিরোপা হাতে মুলার

শিরোপা হাতে মুলার

২০০৬ সালে এই রেকর্ড ভাঙেন ব্রাজিলের রোনালদো।

জার্মানির বর্তমান নাম্বার ওয়ান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে সাফল্যের পাল্লাটাও অনেক ভারি মুলারের। বায়ার্নের হয়ে ১৫ মৌসুম খেলেন তিনি। বায়ার্নকে ১৯৭৪ থেকে ১৯৭৬ পর্যন্ত টানা ৩বার ইউরোপিয়ান ক্লাব কাপ (বর্তমানে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ) পেতে অবদান রাখেন তিনি। ব্যাভারিয়ানদের জার্সি গায়ে তার মোট গোলসংখ্যা ৫৩৩; যা সত্যিই অবিশ্বাস্য।

খেলোয়াড়ি জীবনে জার্ড মুলারকে ‘ডেয়ার বম্বার’ নামে ডাকত  জার্মানরা। এর অর্থ জাতীয় বোমারু বিমান। গোল করার অসাধারণ দক্ষতার জন্য এমন উপাধি পান তিনি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ