কুষ্টিয়ায় একই পরিবারের ৪ জনকে অজ্ঞান করে মালামাল লুট
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রাজশাহী

কুষ্টিয়ায় একই পরিবারের ৪ জনকে অজ্ঞান করে মালামাল লুট

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে রাতের খাবার খেয়ে একই পরিবারের চারজন জ্ঞান হারানোর পর স্বর্ণ, টেলিভিশনসহ বাড়ির মালামাল লুট করা হয়েছে। গতকাল রোববার রাতে উপজেলার কয়া ইউনিয়নের খলিশাদহ গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে পলাতক রয়েছে বাড়ির গৃহকর্মী।

Kushtia

স্যাটেলাইন মানচিত্রে কুষ্টিয়ার একাংশ।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, অজ্ঞান চারজন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তারা হলেন- শহিদুল ইসলাম মোল্লা (৬৫), রুবি আক্তার (৩২), শিমু আক্তার (৩০) ও সাবিনা আক্তার (৩০)।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসা কর্মকর্তা আশরাফুল হাসান জানান, আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে চারজনকে অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, খাদ্যে বিষক্রিয়ায় অসুস্থ হয়েছেন তারা। প্রাথমিক চিকিৎসার পর এখন ওয়ার্ডে রয়েছেন তারা।

প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে কুষ্টিয়া পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাবিবুর রহমান বলেন, গতকাল শহিদুল ইসলামসহ পরিবারের সদস্যরা রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। এর কিছুক্ষণ পর অসুস্থ হয়ে অচেতন হন তারা। সকালে তাদের কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের ঘরের স্বর্ণ, ল্যাপটপ, টেলিভিশনসহ অন্যান্য মালপত্র পাওয়া লুট হয়েছে। বাড়ির গৃহকর্মীকেও পাওয়া যায়নি। কাল রাতে ওই বাড়িতে আর কেউ ছিলেন কি না- তা নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি।

এসআই হাবিবুর বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, রাতের খাবারে গৃহকর্মী বিষাক্ত কিছু মিশিয়ে ছিল। এর বিষক্রিয়ায় বাড়ির সদস্যরা অচেতন হয়ে পড়েন। পরে মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায় গৃহকর্মী। এই কাজে এক বা একাধিক ব্যক্তি তাকে সহযোগিতা করতে পারেন। এ ব্যাপারে মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি জানান, দেড় মাস আগে ওই গৃহকর্মী বাড়ির কাজে নিয়োগ দিয়েছিলেন শহিদুল ইসলাম। ওই গৃহকর্মীর বাড়ি মাগুরায়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ