এবার ব্রিটেনে ‘ধরা’ ভক্সওয়াগন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অটোমোবাইল

এবার ব্রিটেনে ‘ধরা’ ভক্সওয়াগন

দুষণ কেলেঙ্কারিতে ধরা জার্মানভিত্তিক গাড়ি নির্মাতা কোম্পানি ভক্সওয়াগন। একের পর এক ধাক্কা যেন সামলে উঠতে পারছে না কোম্পানিটি। জার্মানির ফ্রাঙ্কফুট বাজারে শেয়ারে ধাক্কা, সুইজারল্যান্ডে গাড়ি বিক্রি বন্ধের পর ফের ধাক্কা খেল যুক্তরাজ্যে। দেশটিতে বিভিন্ন মডেলের ৪ হাজার গাড়ি বিক্রি সাময়িক বন্ধ হলো।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

ভক্সওয়াগন জানিয়েছে, দুষণ কেলেঙ্কারির কবজায় যুক্তরাজ্যের গাড়িগুলোও ধরা পড়তে পারে। আর সেকারণেই গাড়িগুলোর বিক্রি সাময়িক বন্ধ রাখা হচ্ছে।

মডেলগুলোর মধ্য রয়েছে- ভিডব্লিউ, অডি, স্কোডা ও সিট ব্র্যান্ড।

কোম্পানিটি জানিয়েছে, এটা হচ্ছে তাদের একটি অস্থায়ী পদক্ষেপ। খুব শিগগিরই তারা সমস্ত মন্দা কাটিয়ে গাড়ি বাজারে আবার নিজেদের জায়গা ফিরিয়ে আনতে চায়।

প্রায় ২ সপ্তাহ আগে ধরা পড়ে এই কেলেঙ্কারি। আর এ কারণে শুধু যুক্তরাজ্যে গাড়ি নির্মাতা কোম্পানিটি তাদের ৩ শতাংশ জনপ্রিয়তা হারিয়েছে।

তবে ভক্সওয়াগন গ্রাহকরা সবশেষ বের করা, আধুনিক ইঞ্জিন প্রযুক্তি চালিত নতুন গাড়ি কেনা চালিয়ে যেতে পারবেন।

গত সপ্তাহে এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ গাড়ি নির্মাতা কোম্পানি হচ্ছে ভক্সওয়াগন। যুক্তরাষ্ট্রের দুষণ পরীক্ষায় সম্প্রতি তাদের জালিয়াতির ধরা পড়ার পরই ভক্সওয়াগনের নতুন নতুন সংকট তৈরি হচ্ছে। এতে করে সারা বিশ্বব্যাপী হুমকি মুখে পড়েছে ১ কোটি ১০ লাখ গাড়ি। ফলে মোটা অংকের অর্থদণ্ড দিতে হচ্ছে কোম্পানিটিকে। বিশ্ববাজারেই খুঁয়াতে হচ্ছে ১৮০০ কোটি মার্কিন ডলার।

এদিকে কোম্পানির এমন দুরাবস্থার মুখে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্টিন উইন্টারকর্ন ইতোমধ্যে পদত্যাগ করেছেন।

প্রসঙ্গত, প্রতিযোগিতায় এগিয়ে গাড়ির বিক্রি বাড়াতে গোপন চাতুরতার পথ বেছে নেয় জার্মানির এ বহুজাতিক কোম্পানি ভক্সওয়াগন। সংস্থাটি তাদের তৈরি গাড়িতে এমন একটি সফটওয়্যার ব্যবহার করে; যা কার্বন নির্গমনের প্রকৃত তথ্য দেবে না। বরং নির্ধারিত মাত্রার মধ্যে কার্বন রয়েছে এমন তথ্য দেখাবে। এই সফটওয়্যারটি কোম্পানির পাসাত ও অডি এ৩ কম্প্যাক্ট মডেলের ডিজেল ইঞ্জিনে ব্যবহার করা হয়েছে।

ইউরোপের বাজারে মন্দা থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ভারত, চীন প্রভৃতি দেশে গাড়ি বিক্রিতে জোর দিয়েছে সংস্থাটি। আর এর জন্য সংশ্লিষ্ট দেশের দূষণ আইন ফাঁকি দিয়ে এই সফটওয়্যারটি ব্যবহার করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটির দোষ স্বীকারের পর জার্মানি, ফ্রান্স, দক্ষিণ কোরিয়া এবং ইতালির দুষণ নিয়ামক সংস্থাগুলি ভক্সওয়াগনের যাবতীয় গাড়ি পরীক্ষা করে দেখবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গত সপ্তাহে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুটে ভক্সওয়াগনের শেয়ার দর এক ধাক্কায় একদিনে ৩০ শতাংশ কমে যায়। ওই দিন কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দর ১৬০ ডলার থেকে নেমে আসে ১১০ ডলারে।

তথ্যসূত্র: বিবিসি।

অর্থসূচক/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ