টাঙ্গাইলে পুলিশের সঙ্গে জনতার সংঘর্ষ, নিহত ৩
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

টাঙ্গাইলে পুলিশের সঙ্গে জনতার সংঘর্ষ, নিহত ৩

Tangile_1

টাঙ্গাইলের কালিহাতিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষুদ্ধ জনতা

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে মা-ছেলেকে বিবস্ত্র করে তাদের ওপর নির্যাতন চালানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর সঙ্গে পুলিশের  সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ৩ জন নিহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরও অন্তত ২৫ জন।

নিহতরা হলেন- শামীম হোসেন (২৫), ফারুক হোসেন (৩৮) ও শ্যামল চন্দ্র দাস (২৮)।

তিনজন নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরিফুর রহমান।

শুক্রবার বিকেল পাঁচটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার কালিহাতীর সাতুটিয়া গ্রামে এক তরুণ ও তার মাকে শ্লীলতাহানি ও নির্যাতন করা হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই গ্রামের বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম ওরফে রোমা ও তার ভগ্নিপতি হাফিজুর রহমানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী গতকাল বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। বিকেল চারটার দিকে তারা কালিহাতী ও পাশের ঘাটাইল উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে কালিহাতী বাসস্ট্যান্ডে জড়ো হতে থাকেন। বিকেল পাঁচটার দিকে তারা টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করলে পুলিশ বাধা দেয়। তখন বিক্ষোভকারীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে তারা মিছিল করে থানার দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ আবারও বাধা দেয়। এ সময় বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ প্রথমে বেশ কয়েকটি কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভকারীরাও তখন পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকেন। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। বিক্ষোভকারীরা বাসস্ট্যান্ডে কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিপেটা শুরু করে এবং গুলি ছোড়ে। পুলিশের লাঠির আঘাত ও গুলিতে অর্ধশতাধিক বিক্ষোভকারী আহত হন। আহত ব্যক্তিদের কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে গুরুতর আহত ব্যক্তিদের টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে কালিহাতীর কুষ্টিয়া গ্রামের ফারুক হোসেনকে (৩০) কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং ঘাটাইল উপজেলার সালেঙ্কা গ্রামের শামীম হোসেন (৩২) টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যান বলে জানান কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন।

ঢাকায় নেওয়ার পথে রাত ১১টার দিকে মারা যান গুরুতর আহত তিনজনের একজন শ্যামল চন্দ্র দাশ। তার বাড়ি ঘাটাইলের সালেঙ্কা গ্রামে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ