ভ্যাট নিয়েও মাফ চান, অর্থমন্ত্রীকে এমাজউদ্দিন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

ভ্যাট নিয়েও মাফ চান, অর্থমন্ত্রীকে এমাজউদ্দিন

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউশন ফির ওপর আরোপিত ভ্যাট নিয়ে আন্দোলনের মধ্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বক্তব্য পরিহার করে তাকে মাফ চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য  ও আদর্শ ঢাকা আন্দোলনের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমদ।

তিনি বলেছেন, ভুল শুধরে নিন। শিক্ষকদের নিয়ে বাজে কথা বলে মাফ চেয়েছেন। এবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহার করে মাফ চান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমদ

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘শিক্ষা ব্যবস্থায় নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি, শিক্ষকদের ক্ষেত্রে বৈষম্য ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহার’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ড. এমাজউদ্দিন আহমদ বলেন, পৃথিবীর কোনো দেশে শিক্ষা ক্ষেত্রে ভ্যাট নেই। এশিয়ার অন্য দেশগুলোও শিক্ষাকে অবৈতনিক করেছে। সেখানে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা নিতে টাকা লাগে না।

শিক্ষা খাতে ইতিহাস গড়ার মতো বাজেট হওয়া উচিৎ মন্তব্য করে প্রবীণ এই রাষ্ট্রবিজ্ঞানী বলেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে অনুদান পাওয়ার আশা করা উচিত নয়। দেশের ৬৫-৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরে। সেখানে কোনো অর্থ বরাদ্দ দেয় না সরকার। তাহলে কেন ভ্যাট বসাবে।

সংগঠনের সভাপতি শামা ওবায়েদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক নীতাই রায় চৌধুরী, সহ দপ্তর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন এবং মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র সহ সভাপতি হাজী মোঃ আবুল হোসেন প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, শিক্ষকদের নিয়ে বাজে কথা বলার জন্য অর্থমন্ত্রী মাফ চেয়েছেন- অধ্যাপক এমনটা দাবি করলেও অর্থমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এমন বানী আসেনি। তিনি স্বতন্ত্র পে-স্কেলের দাবিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের চলমান আন্দোলন নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছিলেন তা প্রত্যাহার করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। গতকাল সিলেট সার্কিট হাউসে দেওয়া এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি যেভাবে বক্তব্য দিয়েছি তা অপমানজনক। ‘জ্ঞানের অভাব’ বলা আর ‘যথাযথ তথ্য সমন্ধে অনবহিত’ বলা এর মধ্যে অনেক তফাৎ রয়েছে। ‘আনইনফরমড’ শব্দের সঠিক বাংলা না পাওয়ায় ‘জ্ঞানের অভাব’ শব্দটি ব্যবহার করেছিলাম। আমি এ বক্তব্যের জন্য দুঃখিত।’।

ওই সংবাদ সম্মেলনে ভ্যাট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “এ টাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে দিতে হবে। তারা যে হারে টাকা আদায় করে সে হারে এটা দিতেই পারে। তবে কোনো ফি বাড়াতে পারবে না।”

এদিন দুপুরে আবার সরকারের এক তথ্য বিবরণীতে ভ্যাট প্রসঙ্গে এনবিআরের একটি ‘ব্যাখ্যা’ দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, “শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করার জন্য নতুন করে ভ্যাট আরোপ করা হয়নি। বিদ্যমান টিউশন ফি’র মধ্যে ভ্যাট অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

অর্থসূচক/মাইদুল/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ