সর্ববৃহৎ যুদ্ধজাহাজ নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

সর্ববৃহৎ যুদ্ধজাহাজ নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

খুলনা শীপইয়ার্ডে আজ ২টি ‘লার্জ প্যাট্রোল ক্রাফ্ট’ (এলপিসি) নির্মাণ কাজ শুরুর মাধ্যমে দেশে জাহাজ নির্মাণ শিল্পে নতুন দিগন্তের উন্মোচন হলো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এলপিসি ২টির কেল স্থাপন করে তার দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যে, খুলনা শীপইয়ার্ড আগামী দিনে উন্নত ও আধুনিক যুদ্ধজাহাজ রপ্তানিত সক্ষম হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি

শেখ হাসিনা আজ বিকেলে খুলনা শীপইয়ার্ডে কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে এলপিসি ২টির নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। একই অনুষ্ঠানে তিনি নৌবাহিনীর জন্য কন্টেইনার ভেসেল উন্মুক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে নৌবাহিনী প্রধান ও খুলনা শীপইয়ার্ডের পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান ভাইস এডমিরাল ফরিদ হাবিব এবং শীপইয়ার্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এম খুরশিদ মালিক বক্তৃতা করেন।

অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ বিশ্ববাজারে জাহাজের চাহিদা বৃদ্ধির সুবর্ণ সুযোগ কাজে লাগাতে শুরু করেছে। এখন অনেক দেশ খুলনা শীপইয়ার্ডের ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করে তাদের সাথে যোগাযোগ করছে। মংলায় জয়মনি গোলে স্থায়ী সম্পদের ব্যবহার দেশে জাহাজ তৈরি শিল্পকে আরো সম্প্রসারিত করবে।

তিনি বলেন, যে কোনো ধরনের জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় ভেসেল নির্মাণ, প্রয়োজনীয় ডেজিং ও অন্যান্য যন্ত্রপাতির রক্ষণাবেক্ষণে সক্ষমতা ও বিকল্প ব্যবস্থা গড়ে তোলা অপরিহার্য। সরকারের ১৯৯৯ সালে নৌবাহিনীকে খুলনা শীপইয়ার্ড হস্তান্তরের উদ্দেশ্য আজ সফল হয়েছে। ৫টি যুদ্ধজাহাজ নির্মাণের পর, এখন লার্জ প্যাট্রোল ক্রাফ্ট নির্মাণ কাজের মাধ্যমে এই সংস্থা দৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড়ালো।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের অভ্যন্তরীণ নৌরুটে কন্টেইনার জাহাজে বিশেষ করে চট্টগ্রাম, পানগাঁও ও মংলা বন্দর থেকে প্রতিবেশী দেশগুলোতে সহজেই পণ্য পরিবহন করা যায়। প্রধানমন্ত্রী এই প্রচেষ্টায় পাশে রয়েছে এমন বন্ধুপ্রতিম দেশগুলোকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, খুলনা শিপইয়ার্ড দেশের জন্য যুদ্ধজাহাজ নির্মাণে পথিকৃতের ভূমিকা পালন করছে পাশাপাশি বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে পরিণত করার প্রক্রিয়া হিসেবে বিদেশ থেকেও যুদ্ধজাহাজ আমদানি করা হচ্ছে।

সূত্র: বাসস

এই বিভাগের আরো সংবাদ