বাসা-বাড়িতে অবিলম্বে গ্যাস বন্ধের দাবি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

বাসা-বাড়িতে অবিলম্বে গ্যাস বন্ধের দাবি

গৃহ বা বাসা-বাড়িতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধের দাবি জানিয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি বাংলাদেশের (আইসিসিআই) সভাপতি মাহবুবুর রহমান। শিল্পমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেছেন, আজ-কালের মধ্যেই বাসা-বাড়িতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিন। শুধু রাজনৈতিকভাবে চিন্তা করলে হবে না। নির্বাচনের এখনও দুই-তিন বছর বাকি।

মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) ভবনে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) ভবনে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) ভবনে ‘শিল্পায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার পথে চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রি (বিসিআই) এ সেমিনারের আয়োজন করে।

সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্লাস্টিক দ্রব্য প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জসিম উদ্দিন, চিটাগাং উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিসিআইয়ের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু প্রমুখ।

এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি মাহবুবুর রহমানের বক্তব্যের উত্তরে বলেন, রাজধানীতে কোনো কিছুই পরিকল্পিত হচ্ছে না। তবে আমরা নির্দিষ্ট শিল্প কারখানা আলাদা আলাদা স্থানে স্থানান্তর করছি। হাজারীবাগের ট্যানারি স্থানান্তর করছি, ফার্মাসিটিউক্যালের জন্য গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবারাহ করছি, এছাড়া লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং কেরাণীগঞ্জে স্থানান্তর করার চিন্তা-ভাবনা চলছে।

বাসা-বাড়িতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধের বিষয়ে তিনি বলেন, বাসা-বাড়িতে গ্যাস বন্ধের প্রস্তাব আমি আগেই করেছিলাম। গ্যাসের দাম বাড়ানোই সমাধান নয়।

তিনি বলেন, সরকারি সেক্টরগুলোই গ্যাসের সমস্যায় ভুগছে। গ্যাসের জন্য সার কারখানা বন্ধ রয়েছে। প্রাইভেট সেক্টরে কীভাবে দিবো। গ্যাসের চিন্তা করলে হবে না। বিকল্প ব্যবস্থা নিতে হবে।

শিল্প খাতে গ্যাস-বিদ্যুৎ সরবরাহ বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে সেমিনারে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪০ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করতে শিল্পায়নের বিকল্প নেই। আর এজন্য এ খাতে গ্যাস-বিদ্যুতের সরবরাহ বাড়াতে হবে।

বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রি (বিসিআই) সভাপতি এ কে আজাদ এতে সভাপতিত্ব করেন। তিনি বলেন, বর্তমানে জিডিপিতে শিল্পের অবদান ২৯ শতাংশ। এ খাতে ২৮ শতাংশ বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে। শিল্পখাতে ১৮ শতাংশ কর্মসংস্থান আছে। এটা ২৫ শতাংশে উন্নীত করতে হবে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, “সরকার আমাদের গ্যাস ও বিদ্যুৎ দেওয়ার কথা বললেও এখন বলছে গ্যাস দেবে না। তাহলে এখন আমরা কী করব। শুধু বিদ্যুৎ দিলেই হবে না। এ বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে ক্লিয়ারেন্স চাই।”

শিল্প মন্ত্রণালয়ের অনেক জমি অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অব্যবহৃত জমি দিলে আমরা কাজে লাগাতে পারব। তিনি বলেন, সরকার চাইছে বিদেশিরা আমাদের শিল্পখাতে বিনিয়োগ করুক। তবে দেশি বিনিয়োগকারীরাই যেখানে অসহায়, সেখানে বিদেশিরা কীভাবে বিনিয়োগ করবে। এছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাজ কবে শেষ হবে তারও উত্তর চান এ কে আজাদ।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বুয়েটের পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মিনারেল রিসোর্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ তামিম। তিনি বলেন, শিল্পখাতে ৩৪ শতাংশ গ্যাস ব্যবহৃত হয়। জিডিপিতে শিল্পখাতের অবদান বাড়াতে এ খাতে গ্যাস সরবারাহ বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, অধিক নগরায়নের ফলে বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ছে। শহরেই ৭০ শতাংশ বিদুৎ ব্যবহৃত হয়। আর ৩০ শতাংশ গ্রামে ব্যবহৃত হয়। গত ৩০ বছরে বিদ্যুতের ব্যবহার ডাবল হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ড. তামিম বলেন, আমাদের অর্থনীতি সেবা ও কৃষি নির্ভর। তবে সেবা খাতে বিদ্যুতের ব্যবহার বাড়ানোর সুযোগ নেই। কৃষিতে দিলেও তেমন লাভ হবে না। তাই শিল্প খাতে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সরবারাহ বাড়াতে হবে।

মূল প্রবন্ধে তিনি আরও বলেন, অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে শিল্প খাতে গ্যাস-বিদ্যুৎ দিতে হবে। সিএনজির উপর থেকে চাপ কমানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এখন থেকে প্রস্তুতি নিন। পেট্রোলের দাম বেশি থাকায় সিএনজি বা গ্যাসের উপর চাপ বাড়ছে। তাই এ চাপ কমাতে তিনি পেট্রোলের দাম কমিয়ে এর ব্যবহার বাড়ানোর তাগিদ দেন।

এমএইচ/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ