সেপ্টেম্বরে পৃথিবী ধ্বংসের খবর নাকচ নাসার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » টেক

সেপ্টেম্বরে পৃথিবী ধ্বংসের খবর নাকচ নাসার

সুন্দর এ পৃথিবী ধ্বংসের দিন ঘনিয়ে এসেছে। আর তা হবে চলতি বছরই! সেপ্টেম্বরের ২২ থেকে ২৮ তারিখের মধ্যে মহাশূন্য থেকে বিশাল শিলাখণ্ড এসে পড়বে পৃথিবীর উপর। গ্রহাণুর সঙ্গে পৃথিবীর সংঘর্ষ বাধবে। আর তাতে নিমিষেই ধ্বংস হয়ে যাবে এ বিশ্ব। পৃথিবী থেকে মুছে যাবে সব প্রাণের চিহ্ন।Universe

বেশ কিছুদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার এমন খবর শোনা যাচ্ছিল। এদিকে আসন্ন এ বিপর্যয় নিয়ে লেখালেখিও হচ্ছে বিভিন্ন ব্লগ-ওয়েবসাইটে।

খ্রিস্টধর্মীয় তাত্ত্বিকদের মতে, ২০১৫’র সেপ্টম্বরে মানব সভ্যতা ধ্বংস হয়ে যাবে। ধ্বংসের আগে গ্রহের সঙ্গে গ্রহের সংঘর্ষ হবে। যার ফলে পুয়ার্তো রিকো অঞ্চল সহ পৃথিবীর বিস্তর এলাকায় আছড়ে পড়বে এই গ্রহাণু।

কিন্তু সম্প্রতি নাসার জেট প্রোপালসন ল্যাবোরেটরি এই খবর ভিত্তিহীন ঘোষণা করে জানিয়েছে, ২০১২ মায়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী পৃথিবী ধ্বংস হওযার খবরে যে মিথ্যা ছিল তার প্রমাণ আমরা আগেই পেয়েছি। আগামী একশ বছরে .০১ শতাংশ পৃথিবীর ধ্বংস হওয়ার কোনও আশঙ্কা নেই।

নাসা জানিয়েছে, প্রায় সব গ্রহাণুই ধ্বংস হয় বায়ুমণ্ডলীয় ঘর্ষণের ফলে। ঘর্ষণে গ্রহাণুগুলো ছোট ছোট টুকরোয় পরিণত হয়ে স্থলে আঘাত হানার আগেই পুড়ে যায়। ফলে এর ধ্বংসাত্মক ভূমিকা থাকে না।

নাসার বিজ্ঞানীরা জানান, নিকট ভবিষ্যতে কোনো গ্রহাণু, নক্ষত্র বা ধুমকেতুর পৃথিবীর সঙ্গে ঘর্ষণের সম্ভাবনা নেই। ফলে পৃথিবীতে কাছাকাছি সময়ে বড় কোনো বিপর্যয় হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

এর আগে, ২০১১ সালে খ্রিস্টান ফ্যামিলি রেডিও’র সম্প্রচারক হ্যারল্ড ক্যাপিং বলেছিলেন, সে বছর ২১ মে হবে পৃথিবীর শেষ দিন। ওই দিন যিশু খ্রিস্ট পৃথিবীতে আবার আসবেন ও সৎ ব্যক্তিদের স্বর্গে নিয়ে যাবেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ