মাদক মামলায় আটক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার মৃত্যু
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » জাতীয়

মাদক মামলায় আটক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার মৃত্যু

মাদকের মামলায় কারাগারে আটক স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতা আজ বুধবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফরহাদ হোসেনের (৪৫) মৃত্যুতে  আত্মীয় স্বজনের আহাজারি।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফরহাদ হোসেনের (৪৫) মৃত্যুতে আত্মীয় স্বজনের আহাজারি।

মৃত নেতা হলেন ফরহাদ হোসেন (৪৫)। তিনি ঢাকা মহানগর উত্তরের স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। সম্প্রতি বাড্ডায় চার খুনের আসামি ধরার অভিযানে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ সকালে ফরহাদ হোসেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে সকাল ৬টার দিকে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে আনার পর তাকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তবে ঠিক কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে সে ব্যাপারে কিছুই জানা যায়নি।

হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মোজাম্মেল হক বলেন, বাড্ডা থানার ওসি এম এ জলিল জানিয়েছেন, ফরহাদকে গত ১৮ অগাস্ট বাড্ডায় তার অফিস থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওসি এম এ জলিল বলেন, “ওই অভিযানের সময় তার অফিস থেকে ১৩ বোতল ফেনসিডিল, ৬২টি ইয়াবা এবং ফেনসিডিলের কিছু খালি বোতল উদ্ধার করা হয়। পরে মাদকের মামলা দিয়ে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।”

সম্প্রতি বাড্ডায় চার খুনের ঘটনায় সন্দেহভাজনদের তালিকায় ফরহাদের তালিকাভুক্ত আসামি ছিলেন কি না সে সম্পর্কে জানতে চাইলে ওসি বলেন, “ ওই ঘটনার অভিযুক্তদের ধরতে প্রায়ই অভিযান চালানো হয়। অভিযানের অংশ হিসেবেই ফরহাদকে আটক করা হয়। তবে তাকে মাদকের মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়।”

গত ১৩ অগাস্ট বাড্ডার আদর্শনগর পানির পাম্পের কাছে দুর্বৃত্তের গুলিতে আহত হন বেশ কয়েকজন। ওই ঘটনায় হাসপাতালে নেওয়ার পর ভিন্ন সময়ে মারা যান স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান গামাসহ চারজন।

এছাড়া গত ২০ অগাস্ট গাজীপুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুযুদ্ধে সাইদুর রহমান নামে বাড্ডার এক যুবলীগকর্মী নিহত হন। তার নাম স্থানীয়দের সন্দেহভাজন হিসেবে সংবাদ মাধ্যমে আসে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ