পেঁয়াজবাজার: ভারতের আগুন ছড়িয়েছে বাংলাদেশে
শুক্রবার, ৭ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পণ্যবাজার

পেঁয়াজবাজার: ভারতের আগুন ছড়িয়েছে বাংলাদেশে

ভারতের পেঁয়াজ বাজারের আগুন এখন বাংলাদেশেও ছড়িয়েছে। আর এ আগুনে পুড়ছেন অসহায় ক্রেতারা। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে পণ্যটির দাম বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ হারে। এদিকে দেশের বাজারে পেঁয়াজের পাশাপাশি বেড়েছে কাঁচা মরিচের দামও।

মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার ও শান্তিনগর কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, খুচরা বিক্রেতারা প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ৮৫ থেকে ৯৫ টাকা পর্যন্ত। সপ্তাহের ব্যবধানে যা বেড়েছে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া পাইকারি বাজারে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৭৫ থেকে ৮০ টাকায়।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কারওয়ান বাজার থেকে ছবি তুলেছেন মহুবার রহমান।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কারওয়ান বাজার থেকে ছবি তুলেছেন মহুবার রহমান।

অন্যান্য সবজির দাম অনেকটা স্থিতিশীল থাকলেও পেঁয়াজের পাশাপাশি বেড়েছে কাঁচা মরিচের দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে ৭৫ থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় এ পণ্যটির দাম। গত সপ্তাহে ৮০ থেকে ৯০ টাকায় কাঁচা মরিচ পাওয়া গেলেও মঙ্গলবার এ পণ্যটি কিনতে গুণতে হয় ১৮০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত। তবে পাইকারি বাজারে কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা (কেজি প্রতি)।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণ জানতে চাইলে কারওয়ান বাজারের আড়তদার আমির হোসেন বলেন, ভারতের বাজারে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণে আমাদের বাজারেও এর প্রভাব পড়ছে। কেননা, আমাদের বাজারের অনেকটাই ভারতীয় পেঁয়াজের উপর নির্ভরশীল।

ছবি মহুবার

ছবি মহুবার

পেঁয়াজের এমন মূল্যবৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি ভুগছেন খুচরা বিক্রেতারাও। কারওয়ান বাজারের খুচরা বিক্রেতা আশিকুর আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, “কোরবানির ঈদ সামনে রেখে পেঁয়াজের এ দাম আরও বাড়তে পারে। ফলে ক্রেতাদের সাথে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি আমরাও। কেননা, আমরা আড়ৎ থেকে পাইকারী কিনে বিক্রি করি। তাই আমাদের বাড়তি দামে পেঁয়াজ কিনতে বাড়তি টাকা খরচ করতে হচ্ছে। অথচ লাভ আগের মতই।”

অন্যদিকে ক্রেতাদের অভিযোগ, ভারতের অজুহাত দেখিয়ে বিক্রেতারা ইচ্ছে করেই পেঁয়াজের দাম বাড়াচ্ছেন। এ কারণেই হুট করে পেঁয়াজের দামে আগুন।

ছবি সংগৃহীত

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিমের দাম বেড়েছে হালিপ্রতি ৪ থেকে ৬ টাকা। কারওয়ান বাজারের পাইকারি মার্কেটে প্রতিহালি মুরগির ডিম ৩৫ থেকে ৩৮ টাকায় বিক্রি হলেও খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪২ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে হালিপ্রতি ৪৪ থেকে ৪৮ টাকা।

প্রসঙ্গত, পর্যাপ্ত বৃষ্টির অভাব এবং প্রকৃতির খেয়ালে অসময়ে বৃষ্টি, এই দুইয়ের জেরেই ভারতজুড়ে ব্যপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পেঁয়াজের ফলন। গতকাল ভারতের রাজধানী দিল্লিতে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৮০ রুপি প্রতিকেজি। তবে এ দাম ১০০ রুপিও ছাড়িয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জানা গেছে, পেঁয়াজের এমন মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে আনতে সরকারিভাবে পেঁয়াজ আমদানির উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। ইতোমধ্যে ১২৭ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। দু-এক দিনের মধ্যে আরও ২০০ টন পেঁয়াজ আমদানি হওয়ার কথা রয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ