স্বেচ্ছায় এমপি পদ ছাড়বেন লতিফ সিদ্দিকী
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অপরাধ ও আইন

স্বেচ্ছায় এমপি পদ ছাড়বেন লতিফ সিদ্দিকী

অবশেষে সংসদ সদস্য পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়েছেন সাবেক ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী।

আজ রোববার নির্বাচন কমিশনের শুনানিতে হাজির হয়ে তিনি বলেন, সংসদ সদস্য পদ থেকে আমি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করব। এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে গেলাম। এনিয়ে আর শুনানি করার দরকার নেই।

latif 1

গত ২৯ জুন জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ৫১২ নং কক্ষের সামনে আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। ছবি: মহুবার রহমান

এর আগে আজ সকালে লতিফ সিদ্দিকীর জাতীয় সংসদের সদস্যপদ বাতিলের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের শুনানির এখতিয়ার বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত কোনো আদেশ (নো অর্ডার) দেননি প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ। ফলে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল থাকে। এরপর শুনানিতে অংশ নিয়ে নির্বাচন কমিশনে হাজির হন লতিফ সিদ্দিকী। সেখানে পদত্যাগের কথা জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে এক অনুষ্ঠানে হজ এবং প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেন তৎকালীন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী। এরপরই মন্ত্রিত্ব হারান তিনি। একই সঙ্গে নিজ দল আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত হন এই নেতা। দল থেকে বহিষ্কারের পর লতিফ সিদ্দিকীর সংসদ সদস্য পদ থাকবে কি না- তা মীমাংসার জন্য গত ১৩ জুলাই প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে চিঠি দেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। নির্বাচন কমিশনে আজ এ বিষয়ে শুনানির জন্য দিন ছিল।

অবশ্য এর আগেই লতিফ সিদ্দিকী নির্বাচন কমিশনের দেওয়া নোটিশের কার্যকারিতা স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন। একই সঙ্গে ওই চিঠি কেন অবৈধ ও অকার্যকর ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে রুলের আর্জি জানান তিনি। প্রধান নির্বাচন কমিশনার, আইন সচিব, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপসচিব (আইন) ও স্পিকারকে রিট আবেদনে বিবাদি করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার হাইকোর্ট লতিফ সিদ্দিকীর করা রিট আবেদন খারিজ করে দেন। ওই দিনই লতিফ সিদ্দিকী হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে যান। ওই আবেদন শুনানির জন্য আজ দিন ধার্য রেখেছিলেন আপিল বিভাগ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ