‘কৈশরের প্রেমে বিষণ্নতা ও নেশার ঝুঁকি’  
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লাইফস্টাইল

‘কৈশরের প্রেমে বিষণ্নতা ও নেশার ঝুঁকি’  

১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সে যারা প্রেম এড়িয়ে চলে তাদের চেয়ে এ বয়সে প্রেমে পড়া ছেলেমেয়েদের মানসিকভাবে বিষণ্ন ও নানা ধরনের নেশার প্রতি আসক্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। আর পরিণত বয়সে প্রেমে পড়া ছেলেমেয়েদের এই ঝুঁকি কম।

১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সে যারা প্রেম এড়িয়ে চলে তাদের চেয়ে এ বয়সে প্রেমে পড়া ছেলেমেয়েদের মানসিকভাবে বিষণ্ন ও নানা ধরনের নেশার প্রতি আসক্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সে যারা প্রেম এড়িয়ে চলে তাদের চেয়ে এ বয়সে প্রেমে পড়া ছেলেমেয়েদের মানসিকভাবে বিষণ্ন ও নানা ধরনের নেশার প্রতি আসক্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ডেনভার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে। ২০০ জন কিশোর-কিশোরীর প্রেম নিয়ে ৯ বছর ধরে এই গবেষণা চালানো হয়। গবেষণা প্রতিবেদনটি চাইল্ড ডেভেলপমেন্ট জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, সামাজিক প্রতিবন্ধকতা ও আগ্রাসনে যেমন কচি মনে মানসিক চাপ সৃষ্টি হয়; তেমনি অল্প বয়সে প্রেমের সম্পর্ক মানসিক চাপ সৃষ্টি করে।

গবেষকরা জানিয়েছেন, গবেষণায় প্রেম নিয়ে ওই কিশোর-কিশোরীদের দুশ্চিন্তা, বিষণ্নতা ও সামাজিক প্রতিবন্ধকতা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। এছাড়া তারা কোনো মাদক গ্রহণ করে কি না এবং প্রেম নিয়ে সন্তুষ্ট কি না তাও জানতে চাওয়া হয়। এতে দেখা গেছে, কৈশোরের প্রেম যতটা ঝুঁকিপূর্ণ প্রাপ্ত বয়সের প্রেম ঠিক ততটাই ভরসাপূর্ণ।

১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সে যারা প্রেম এড়িয়ে চলে তাদের চেয়ে এ বয়সে প্রেমে পড়া ছেলেমেয়েদের মানসিকভাবে বিষণ্ন ও নানা ধরনের নেশার প্রতি আসক্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সে যারা প্রেম এড়িয়ে চলে তাদের চেয়ে এ বয়সে প্রেমে পড়া ছেলেমেয়েদের মানসিকভাবে বিষণ্ন ও নানা ধরনের নেশার প্রতি আসক্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

গবেষণায় আরও দেখা গেছে, বয়স বাড়ার সঙ্গেসঙ্গে মানুষের ব্যক্তিত্ব ও মানসিক অবস্থার পরিবর্তন হতে থাকে।

গবেষক দলের সদস্য অধ্যাপক উইন্ডল ফারম্যান বলেন, যেকোনো সম্পর্কের ক্ষেত্রে ব্যক্তিত্বই মূল। আমাদের গবেষণায় রোমান্টিক চরিত্র উন্নয়নে গুরুত্ব দেওয়া হয়। কৈশোরে হোক আর পরিণত বয়সে হোক যেকোনো সময় সম্পর্কের ক্ষেত্রে রোমান্সের উপর জোর দিতে হবে। তবে একইসঙ্গে ব্যক্তিত্বের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

প্রেমের সঙ্গে স্বাস্থ্য ও সুখের  গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব থাকায় কিশোর-কিশোরী ও প্রাপ্তবয়স্কদের ইতিবাচক ও সন্তোষজনক সম্পর্ক গড়ে তুলতে উৎসাহ দেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন মার্কিন এই গবেষক।

এই বিভাগের আরো সংবাদ