মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার নতুন তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » শিক্ষা

মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার নতুন তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর

২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পূর্ব ঘোষিত তারিখ ছিল ২ অক্টোবর।

ছবি সংগৃহগীত

ছবি সংগৃহগীত

রোববার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক খুদে বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়।

গত বছর থেকে ভর্তি পরীক্ষার পাস নম্বর ন্যূনতম ৪০ করা হয়েছে। বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলো এর বিরোধিতা করে আসছে। তারা চায় পরীক্ষায় অংশ নিলেই শিক্ষার্থীকে ভর্তির অনুমতি দিতে হবে।

গত ৯ আগস্ট প্রকাশিত হয় এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল। এই ফল এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজের আসনসংখ্যা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের তুলনায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজগুলোতে আসনসংখ্যা বেশি। এবার মেধার সর্বোচ্চ স্বীকৃতি জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা গতবারের চেয়ে প্রায় ২৮ হাজার কমেছে। এবার ১০ বোর্ড মিলিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪২ হাজার ৮৯৪ জন শিক্ষার্থী। বিপরীতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজগুলোতে আসন রয়েছে প্রায় ৫০ হাজার। এর বাইরে রয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ও ফাজিল মাদ্রাসা।

এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড এবং মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ডে মোট পাস করেছেন ৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮৭২ জন। এর মধ্যে এইচএসসিতে পাস করেছেন ৫ লাখ ৭৭ হাজার ৮৭ জন।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি), স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির হিসাব অনুযায়ী, এবার উচ্চশিক্ষায় ভর্তিযোগ্য আসন প্রায় সাত লাখ। এর মধ্যে জাতীয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বাদে শুধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আসন আছে ৪২ হাজার ৯৮৪টি। সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে আসন আছে ৯ হাজার ১১২টি।

অন্যদিকে এবার শুধু এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৭২১ জন। বিজ্ঞানে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৬ হাজার ৫৫৬ জন। মেডিকেল কলেজ, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ছাড়াও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের জন্য কয়েক হাজার আসন রয়েছে। ভর্তি পরীক্ষার সময় এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলের ওপর ভিত্তি করে পয়েন্ট ভর্তি পরীক্ষার নম্বরের সঙ্গে যোগ হয়।

জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়-মেডিকেলে আসন বেশি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ