মায়ের পেটে শিশু গুলিবিদ্ধ: সরকারকে ক্ষমা চাইতে বললেন এরশাদ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

মায়ের পেটে শিশু গুলিবিদ্ধ: সরকারকে ক্ষমা চাইতে বললেন এরশাদ

Hossain MD. Ershad

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। ফাইল ছবি

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় মায়ের পেটে শিশু গুলিবদ্ধ হওয়ার ঘটনায় সরকারকে জাতির ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মাগুরায় গুলিবিদ্ধ নবজাতক ও তার মা’কে দেখতে গিয়ে এ আহ্বান জানিয়েছেন এরশাদ।

এরশাদ বলেন, মায়ের পেটে শিশু গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষমা চাওয়া উচিত। ভবিষ্যতে যেন এমন ঘটনা আর না ঘটে সে ব্যবস্থাও সরকারকে নিতে হবে। বিচার ব্যবস্থা সুষ্ঠু না হলে এমন ঘটনা ঘটতেই থাকবে।

দেশে বিচার হচ্ছে না এমন মন্তব্য করে এরশাদ বলেন, বিচারহীনতার এই সংস্কৃতির কারণে দেশে বারবার শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে।

 প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ আরও বলেন, আমরা শিশুদের আদর করি। কিন্তু আমাদের মন ও হৃদয় আগে যেমন কোমল ছিলো- এখন তা নেই। সময়ের সঙ্গে আমরা বর্বর ও নিষ্ঠুর হয়ে যাচ্ছি তাই শিশু নির্যাতন ও হত্যার ঘটনা বাড়ছে।

এরশাদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘সবার সামনে শিশুদের নির্যাতন করা হলেও কেউ আর এগিয়ে আসে না। শিশুকে রক্ষার চেয়ে সবাই ব্যস্ত হয়ে যায় ছবি তুলতে।’

ঢামেকে এরশাদের সঙ্গে ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রেজাউল করিম ভূঁইয়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, উত্তরের সভাপতি এস এম ফয়সাল চিশতী প্রমুখ।

 উল্লেখ, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২৩ জুলাই মাগুরা জেলা শহরের দোয়ারপাড় কারিগর পাড়ায় ছাত্রলীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষের সময় আট মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা নাজমা খাতুন গুলিবিদ্ধ হন। গুলিটি তার গর্ভের সন্তানেরও দেহ ভেদ করে যায়। রাতেই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন নাজমা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে মেয়ে ও কয়েকদিন পর মা নাজমাকে ঢামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় ১৬ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। প্রধান অভিযুক্ত জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সেন সুমনসহ কয়েক আসামি এরই মধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ