ঠাণ্ডাজ্বরে করণীয়
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লাইফস্টাইল

ঠাণ্ডাজ্বরে করণীয়

thanda jor

ঠাণ্ডাজ্বরে করণীয়-ফাইল ছবি

এই মৌসুমে আবহাওয়া পরিবর্তনের পাশাপাশি পারিপার্শ্বিক উষ্ণতারও হ্রাস-বৃদ্ধি ঘটে। ফলে সবাই বিশেষ করে শিশুরা সর্দিজ্বর, ঠাণ্ডা লাগা ও গলাব্যথাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়। এসব রোগ আবার দ্রুত একজনের কাছ থেকে আরেকজনের মধ্যে ছড়ায়। তাই সময়টাতে একটু বেশিই যত্নবান নিতে হয় সবার।

সাধারণত ঠাণ্ডাজ্বর হলে তা ভালো হতে সময় নেয় এক সপ্তাহ। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিজেদের প্রতি একটু যত্নবান হলে ওষুধ ছাড়াই শতকরা ৭০ ভাগ রোগ ভালো হয়ে যায়।

এবার  ঠাণ্ডাজ্বরে মুক্তির বেশ কিছু পন্থা বাতলে দিচ্ছে অর্থসূচক:

আদা চা: ঠাণ্ডাজ্বরে আদা চা অনেক বেশি উপকারি। কারণ এটি শুধু শরীরকে গরমই করে না, বুকের কনজেশনেও সাহায্য করে।

চিকেন স্যুপ: এক বাটি চিকেন স্যুপ শরীরের সকল ইন্দ্রিয়কে জাগিয়ে তোলে। তাই ঠাণ্ডাজ্বরে এটি খেলে উপকার পাওয়া যায়। একই সাথে এটি সুস্থ থাকার বিকল্পও বটে।

হলুদ দুধ: হালকা গরম এক গ্লাস দুধে আধা চা চামচ হলুদ, ৩-৪টা কালো মরিচ এবং এক চা চামচ চিনি মেশান। এই হলুদ দুধটাই ঠাণ্ডাজ্বরে বেশি উপকারি। রোগ প্রতিরোধে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখে এই হলুদ দুধ।

প্রচুর পানি পান করুন: পানির অপর নামই হচ্ছে জীবন। তাই সুস্থ থাকতে দৈনিক ৮-৯ গ্লাস পানি পানের কোনো বিকল্প নেই।

ভিটামিন সি: ঠাণ্ডাজ্বরে কার্যকারী ভূমিকা রাখে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফলগুলো। তাই ডাক্তাররা সর্দি- কাশিতে এগুলো বেশি করে খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

সতর্ক থাকা: একটু সচেতন হলেই অ্যালার্জি ও চোখ ওঠার মতো যে কোনো রোগ বালাই থেকেই মুক্ত থাকা যায়। তাই ঠাণ্ডা থেকে রক্ষা পাওয়ার একটি ভালো বিকল্প হতে পারে এটি।

ঘুম: ঠাণ্ডাজ্বরে রাতে কমপক্ষে ৯ ঘণ্টা ঘুম শরীরের জন্য উপকারি। এতে করে শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক হয়। সেই সাথে রোগ থেকেও সহজেই মুক্তি মেলে।

সূত্র: জিনিউজ

এআরএস/

এই বিভাগের আরো সংবাদ