বেতন-বোনাস হয়েছে ৯৯% কারখানায়: বিজিএমইএ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

বেতন-বোনাস হয়েছে ৯৯% কারখানায়: বিজিএমইএ

বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি

বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি

প্রায় ৯৯ শতাংশ পোশাক কারখানায় কোনো সমস্যা ছাড়াই শ্রমিকদের বেতন ও বোনাস দেওয়া সম্ভব হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম।

বৃহস্পাতিবার পোশাক শ্রমিকদের বেতন ও বোনাসের বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই দাবি জানান। সমস্যা সম্বলিত কারখানাগুলো নিয়ে বিজিএমইএর আন্তরিক প্রচেষ্টায় এটা সম্ভব হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ঈদের আগে শ্রমিকরা যাতে সুষ্ঠুভাবে বেতন-ভাতাদি পায়; সেজন্য সরকার ও আমরা প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। এ কাজে ঢাকা ও আশপাশের প্রায় ৩ হাজার পোশাক কারখানার জন্য ১৫টি আঞ্চলিক কমিটি গঠন করেছি। যার মাধ্যমে নিবিড়ভাবে পুরো পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে।

মোট ১৪৮৯টি কারখানা পরিদর্শন করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, জুন মাসের বেতন পরিশোধ হয়েছে ১৪৮৭টি কারখানার। ঈদ বোনাস পরিশোধ হয়েছে ১৪৮৩টি কারখানার। আবার জুলাই মাসের আংশিক বেতন পরিশোধ হয়েছে ৩১৫টি কারখানার।

আতিকুল ইসলাম জানান, ৩ হাজার ২০০টি কারখানার মধ্যে মাত্র ২টি কারখানা এখনও  বেতন-বোনাস পরিশোধ করতে পারেনি। তবে এই কারখানা দুটির (গিতানো ও গার্মেক্স) শ্রমিকদের বেতন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে তৈরি পোশাকের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে তিনি বলেন, পোশাক খাত সংকট ও চ্যালেঞ্জের মধ্যে অবস্থান করছে। এখনও গত বছরের রাজনৈতিক অস্থিরতার প্রভাব কাটেনি। প্রতিবেশী দেশগুলোর প্রবৃদ্ধি যেখানে বেড়েছে; সেখানে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি কম হয়েছে।

পরিসংখ্যান তুলে ধরে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, পোশাক খাতে পাকিস্তানে ৭ দশমিক ৪৬ শতাংশ, ভারতে ১০ দশমিক ৪৪ শতাংশ, ভিয়েতনামে ১২ দশমিক ৩৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। সেখানে বাংলাদেশে বেড়েছে ২ দশমিক ৯৮ শতাংশ।

এসময় বিজিএমইএ সহ-সভাপতি শহীদুল্লাহ আজীম, দ্বিতীয় সহ-সভাপতি এসএম মান্নান কচি, রিয়াজ বিন মাহমুদ (অর্থ) উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ