ঈদ যাত্রায় আষাঢ়ে ভোগান্তি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

ঈদ যাত্রায় আষাঢ়ে ভোগান্তি

আজ বুধবার আষাঢ় মাসের শেষ দিন। এদিকে দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদ। পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে নগরবাসীর অনেকেই ছুটছেন গ্রামের বাড়ির পথে। কিন্তু সকাল থেকে রাজধানীর আকাশে সূর্যের দেখা মেলেনি। দুপুর ১২টায়ও যেন হয়নি সকাল; আকাশ ছিল ঘন মেঘে ঢাকা। এরই মাঝে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরতে নির্ধারিত সময়ের আগেই স্টেশনে পৌঁছতে বেশ খানিকটা সময় রেখেই বাসা থেকে বের হচ্ছেন অনেকেই। শবে কদরের ছুটি থাকায় রাজধানীর সড়ক অনেকটা ফাঁকা থাকলেও মহাসড়কে দেখা দিয়েছে দীর্ঘ যানজট। একারণে বৃষ্টিভেজা রাস্তায় আটকে নানা ধরনের ভোগান্তি ঘরমুখো মানুষ।

Biman Bandor2

গ্রামের বাড়ি যাওয়ার জন্য নগরীর বাসা থেকে একটু আগেই রওনা দিয়েছেন অনেকেই। তাদের একাংশকে দেখা গেছে বিভিন্ন স্টেশনে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে। আজ বুধবার সকালে রাজধানীর বিমানবন্দর ট্রেন স্টেশনে অপেক্ষারত মানুষের ছবিটি তুলেছেন মহুবার রহমান

সেহরির পরপরই স্ত্রী, দুই মেয়ে ও শাশুড়িকে নিয়ে মিরপুর-২ নম্বর থেকে পাবনার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মী বজলুর রশিদ। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মোবাইল ফোনে অর্থসূচককে ক্ষোভের সুরে তিনি বলেন, “ভাই আর বলিয়েন না। ভোর সাড়ে ৪টায় রওনা হয়েছি; এতক্ষণে বাড়িতে থাকার কথা ছিল। এখন শাহজাদপুরে।”

“পথভরা বৃষ্টি। এর মাঝে দীর্ঘ যানজট। মনে হচ্ছিল, ট্রাফিক সার্জেন্ট ইচ্ছে করেই যানজট লাগিয়ে রেখেছে”, যোগ করেন তিনি।

Biman Bandor

সকাল থেকে অনেকটা অন্ধকার রাজধানীর আকাশ। দুপুর ১২টা এবং ভোর ৫টার মধ্যে কোনো পার্থক্য দেখা যাচ্ছে না। আজ বুধবার দুপুরে রাজধানীর বিমানবন্দর ট্রেন স্টেশনের ছবিটি ক্যামেরায় ধারণ করেছেন মহুবার রহমান

মুসলমানদের সবচেয়ে বড় এই ধর্মীয় উৎসব পরিবার-পরিজনের সঙ্গে করতে আয়োজন একটু আগেই শুরু হয়। বাড়ি যাওয়ার টিকিটের জন্য পোহাতে হয় নানা রকম ভোগান্তি। অনেক সময় দ্বিগুণ টাকায়ও মেলে না কাঙ্ক্ষিত টিকিট। আর টিকিট মিললেও যাত্রাপথে থাকে নানা ধরনের শঙ্কা। এবার এর সঙ্গে যোগ হয়েছে বর্ষাকাল। তাই সব মিলিয়ে ঈদের আগেই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে ঘরমুখো মানুষদের। ঈদের পরও থাকতে পারে বর্ষার ভোগান্তি।

ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন চট্টগ্রামের মোহাম্মদ হাশেম; থাকেন মিরপুর-১২ নম্বরে। তিনি বলেন, সবার সঙ্গে ঈদ করতে বাড়ি যাচ্ছি। অনেক ঝক্কি-ঝামেলার পর আজ সকাল ১১টার টিকিট পেয়েছি। কিন্তু বাসা থেকে বের হতে গিয়েই বিপত্তিতে পড়েছি। ঝুম বৃষ্টি হচ্ছে। আকাশের অবস্থাও ভালো না। মনে হচ্ছে, সারাদিনই ঝরবে বৃষ্টি। এদিকে আমাদের মহাসড়কের অবস্থা তো জানেনই। একটু বৃষ্টি হলেই বাড়ে দুর্ঘটনা। যানজট তো থাকেই।

প্রথমবার শ্বশুর বাড়িতে ঈদ করতে খুলনার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ছেন সাদিয়া আফরিন। অর্থসূচককে তিনি জানান, ঢাকা থেকে খুলনায় যাওয়ায় দুটি পথেই নদী পাড়ি দিতে হয়। বৈরি আবহাওয়ার কারণে অনেক সময় ফেরি পারাপারে সমস্যায় পড়তে হয়। লঞ্চে যাতায়াত করলেও জীবনের ঝুঁকি থাকে। নদীতে ঢেউ বেড়ে গেলে ঝুঁকিও বাড়ে। বর্ষাকালে এই সমস্যাটা সবচেয়ে বেশি।

Mirpur

গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে রাজধানীতে ঝরছে বৃষ্টি। আজ বুধবার সকাল থেকে কালো মেঘে ঢাকা আকাশ। সকাল পৌনে ১১টার দিকেও রাজধানীর বিভিন্ন বাসায় লাইট জ্বালিয়ে কাজ করতে দেখা গেছে। ছবিটি মিরপুর থেকে তোলা।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, আজ বুধবার সকাল ৯টা থেকে আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ঢাকা, রাজশাহী, রংপুর ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় আবহাওয়ার অবস্থা সামান্য পরিবর্তন হতে পারে বলেও জানিয়েছে অধিদপ্তর।

এই বিভাগের আরো সংবাদ