'উপযুক্ত সমাধান খুঁজতে সহায়তা করবে জনগণের এই রায়'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

‘উপযুক্ত সমাধান খুঁজতে সহায়তা করবে জনগণের এই রায়’

ঋণ সঙ্কট সমাধানে আন্তর্জাতিক দাতাদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় গ্রিসের জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ও বামপন্থী দল সিরিজার প্রধান অ্যালেক্সিস সিপ্রাস।

Greece

গ্রিসের পার্লামেন্টের সামনে প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপ্রাসের সমর্থকদের মিছিল।

গ্রিসের স্থানীয় সময় গতকাল রোববার রাতে গণভোটের ফল প্রকাশের পর দেশটির গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অ্যালেক্সিস সিপ্রাস বলেন, ইউরোপের সঙ্গে বিরোধের জন্য নয়; বরং সংকট থেকে উত্তোরণে উপযুক্ত ও গ্রহণযোগ্য সমাধানের ভার আপনারা আমাকে দিয়েছেন। জনগণের রায় একটি উপযুক্ত সমাধান খুঁজে বের করার জন্য সহায়তা করবে।

দেশের সঙ্কটময় মুহূর্তে জনগণের এই সাহসী রায়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি বলেন, সামগ্রিক পরিস্থিতি সব রাজনৈতিক দলের নেতাদের সামনে তুলে ধরতে বৈঠকের জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে অনুরোধ করব।

গিসের প্রধানমন্ত্রী বলেন, দাতাদের প্রস্তাবে নেওয়া গণভোটের বিপক্ষে মত দিয়েছে দেশের জনগণ। এখন ঋণ দাতাদের সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রস্তুত আমরা।

বামপন্থী দল সিরিজার প্রধান বলেন, না ভোট জয়ী হওয়ায় বন্ধ ব্যাংকগুলো খুলে দেওয়ার পথ উন্মোচিত হলো।

নতুন করে সহায়তার জন্য (বেইল আউট) গ্রিসকে কর বাড়ানোর পাশাপাশি জনকল্যাণমূলক ব্যয় কমানোসহ কঠিন আর্থিক পুনর্গঠনের শর্ত দেয় ইউরোজোন। তবে দাতাদের শর্তগুলো মর্যাদাহানিকর বলে সমালোচনা করে আসছে ক্ষমতাসীন সিরিজা পার্টি। দলটির নেতাদের অভিমত, গণভোটে শর্তগুলো নাকচ হলে দাতাদের সঙ্গে দ্রুত নতুন চুক্তিতে যেতে সরকারকে সুযোগ করে দেবে।

গ্রিসের স্থানীয় সময় গতকাল রোববার সকাল ৭টায় শুরু হয়ে একটানা সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলে। এরপর রাত ৯টায় শুরু হয় ভোট গণনা। দিনব্যাপী এই গণভোটে দাতাদের প্রস্তাবের বিপক্ষে মত দিয়েছেন প্রায় ৬০ শতাংশ ভোটার।

আন্তর্জাতিক দাতারা সতর্ক করেছিলেন, ‘না’ ভোটের বিজয় গ্রিক ব্যাংকগুলোর তহবিল বন্ধ হয়ে যেতে পারে এবং গ্রিসকে একক মুদ্রা ইউরো থেকে বের হওয়ার পথে নিয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সাল থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও আইএমএফ থেকে দুটি বেইল আউটে প্রায় ২৪০ বিলিয়ন ইউরো নেয় গ্রিস। এই অর্থে চলতে থাকে দেশটি, যদিও তার জন্য নাগরিকদের অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ সময়ে পেনশন, বেতন ও সরকারি সেবায় কাটছাঁট হয় গ্রিসে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ