ব্যবসার পরিধিবৃদ্ধি করছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » কর্পোরেট সংবাদ

ব্যবসার পরিধিবৃদ্ধি করছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ

বর্তমান শেয়ারহোল্ডারদের বাইরে শুধু প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে নতুন শেয়ার ইস্যূ করে আরও ৬২৪ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশের পূঁজি বাজারে বিমান পরিবহন খাতে একমাত্র কোম্পানী ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। গত ১৫ জুন পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ ঘোষণা দেয় কোম্পানিটি।

united airways

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের একটি বিমান

উদ্যোক্তা পরিচালকদের ন্যূনতম শেযার ধারণের বাধ্যবাধকতার কারণে বিকল্প পথে মূলধন সংগ্রহের এ ঘোষণা দিয়েছে এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ।

এই মুলধন কোম্পানীর ব্যবসা সম্প্রসারণে ব্যয় করা হবে। পর্ষদ সভায় কোম্পানীর অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে দেড় হাজার কোটি টাকায় উন্নীত করারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রথমে শেয়ারহোল্ডার ও পরবর্তীতে সংশ্লিষ্ট সব নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমাদনক্রমে তা বাস্তবায়ন হবে।

আগামী ৬ আগষ্ট শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের জন্য বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) আহবান করেছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ।

উদ্যেক্তা অংশের শেয়ার নির্ধারিত মাত্রার কম থাকার ফলে রাইট বা আরপিও এর মাধ্যমে মূলধন সংগ্রহে বিধিনিষেধ থাকায় বিকল্প পথে মূলধন সংগ্রহ করা হবে। এক্ষেত্রে বিদ্যমান শেয়ারহোল্ডারদের বাইরে দেশী-বিদেশী প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে অভিহিত মূল্যে শেয়ার বিক্রি করে অর্থ সংগ্রহ করা হবে; যা দিয়ে কোম্পানীর নতুন উড়োজাহাজ ক্রয় করে ব্যবসা সম্প্রসারণ করা হবে।

নতুন শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে কোম্পানীর পরিশোধিত মূলধন দ্বিগুন হয়ে ১ হাজার ২৪৯ কোটি টাকায় উন্নীত হবে। বাংলাদেশে পুঁজিবাজারে হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ হবে অন্যতম ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। ইতোমধ্যে দেশি-বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড এয়ারওয়েজে বিনিয়োগ করার জন্য যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে।

আগামী ১০ জুলাই ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ অষ্টম বছর শেষে নবম বর্ষে পদার্পণ করতে চলেছে। ইতোমধ্যে ইউনাইটেড অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে প্রায় ৫৫ হাজার ফ্লাইট পরিচালনা করেছে। দেশে-বিদেশে ২৪ লক্ষাধিক যাত্রী ও প্রায় ৫ হাজার টনের অধিক কার্গো পরিবহন করেছে। বর্তমানে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের প্রায় ১ লক্ষ ৩৬ হাজার শেয়ার হোল্ডার রয়েছে।

নতুনভাবে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে ২টি ড্যাশ-৮ কিউ ৪০০, ২টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০, ২টি এয়ারবাস এ-৩২০ এবং ১৯ সিটের তিনটি ছোট আকারের এয়ারক্রাফট ক্রয় করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ই্উনাইটেড এয়ারওয়েজ বিগত বছরগুলোতে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক রুট সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করেছিল। বর্তমানে এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ সাময়িকভাবে স্থগিত হওয়া আন্তর্জাতিক কয়েকটি রুট পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া কয়েকটি নতুন রুট শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ ঢাকা থেকে দুবাই, মাস্কাট, দোহা, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক রুট সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছিল। আগামী জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে পর্যায়ক্রমে ঢাকা থেকে দুবাই, মাস্কাট, দোহা রুটে সরাসরি ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা করেছে। এছাড়া দুবাই, মাস্কাট দোহা থেকে রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি সিলেট ও চট্টগ্রামেও ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে।

আগামী জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে পুনরায় ঢাকা থেকে ব্যাংকক, সিঙ্গাপুর ফ্লাইট চালু করতে যাচ্ছে। এছাড়া ঢাকা থেকে কুয়ালা লামপুরে সপ্তাহে অতিরিক্ত আরো দু’টি ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা রয়েছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের।

বর্তমানে আন্তর্জাতিক রুটে ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা ও চট্টগ্রাম-কলকাতা-চট্টগ্রাম রুটে প্রতিদিন একটি এবং ঢাকা-কুয়ালা লামপুর-ঢাকা রুটে সপ্তাহে চারটি ফ্লাইট চালু রয়েছে। এছাড়া অভ্যন্তরীণ রুটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর ও সৈয়দপুর ফ্লাইট চালু রয়েছে।

শিগগিরই সাময়িকভাবে স্থগিত হওয়া আন্তর্জাতিক রুট কাঠমুন্ডু, জেদ্দা, মদিনা এবং অভ্যন্তরীণ সেক্টরে রাজশাহী, বরিশাল ও ঈশ্বরদী শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক রুট গুয়াংজু, কুনমিং, আবুদাবি, শারজাহ্, দাম্মাম, রিয়াদ রুটে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। ২০১৬ সালে ঢাকা থেকে যুক্তরাজ্যের গ্যাটউইক, বার্মিংহামসহ আরো কিছু ইউরোপিয়ান রুটে ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে।

অভ্যন্তরীণ রুটে ছোট আকৃতির বিমান দ্বারা দেশের মধ্যে অধিক সংখ্যক রুট পরিচালনার মাধ্যমে আকাশপথে অধিক ভ্রমণ সেবা দেয়ার লক্ষ্যে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ ইতিমধ্যে সরকারের কাছে অনুরোধ করেছে অব্যবহৃত বিমানবন্দরগুলোকে উড্ডয়ন উপযোগী বিমানবন্দরে পরিনত করে দেয়ার জন্য। এর মধ্যে লালমনিরহাট, শমশেরনগর, কুমিল্লা বিমানবন্দর উল্লেখযোগ্য। ছোট এয়ারক্রাফটে উড্ডয়ন খরচ কম থাকায় কারনে অভ্যন্তরীন রুটে কম ভাড়ায় যাত্রী সেবা দিতে পারবে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ।

বর্তমানে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ এর বিমান বহরে দুটি ২৫০ সিটের এয়ারবাস-৩১০, পাঁচটি ১৭০ সিটের এমডি-৮৩, তিনটি ৬৬ সিটের এটিআর-৭২ এবং একটি ৩৭ সিটের ড্যাশ-৮-১০০ সহ মোট এগারোটি এয়ারক্রাফট রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তি/

এই বিভাগের আরো সংবাদ