‘৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগের কাজ চলছে’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » জাতীয়

‘৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগের কাজ চলছে’

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেছেন, দেশের আইন-শৃংখলা রক্ষা এবং জনগণের সম্পদ ও জীবনের নিরাপত্তা বিধানে নিরলসভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার সকালে জাতীয় সংসদের স্বতন্ত্র সদস্য হাজী মো. সেলিমের এক প্রশ্নের জবাবে সংসদকে এই কথা বলেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

Asadujjaman khan kamal

স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ফাইল ছবি

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, আইন-শৃংখলা রক্ষা ও জনগণের জান-মালের নিরাপত্তা বিধানে পুলিশের সক্ষমতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে পুলিশের জনবল বৃদ্ধি ও বিশেষায়িত পুলিশ ইউনিট গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ২০০৯-১৪ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে বিভিন্ন পদমর্যাদার জনবল বৃদ্ধি করা হয়েছে। পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে আরও ৫০ হাজার জনবল বৃদ্ধির কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে নতুন ইউনিট যেমন-ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ রংপুর রেঞ্জ, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), ২ স্পেশাল সিকিউরিটি অ্যান্ড প্রটেকশন ব্যাটালিয়ন, ট্যুরিস্ট পুলিশ, নৌ পুলিশ এবং র‌্যাবের ২টি নতুন ব্যাটালিয়ন গঠন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, কার্যকরভাবে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ পুলিশের একটি নতুন বিশেষায়িত ইউনিট, রংপুর ও গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিট গঠন এবং এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের জনবল বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, পুলিশের দৈনন্দিন কার্যক্রমে প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধিসহ জনশৃংখলা নিরাপত্তা সামগ্রীর মান প্রমিতকরণ, অস্ত্র-গোলাবারুদ, যানবাহন, যন্ত্রপাতি ও অন্যান্য সরঞ্জামাদির মান আধুনিক ও যুগোপযোগী করার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

তিনি বলেন, শিল্প এলাকা, নৌ-পথ ও পর্যটন এলাকার নিরাপত্তা বিধানের লক্ষ্যে অত্যন্ত সাফল্যের সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করছে শিল্প পুলিশ নৌ পুলিশ ও ট্যুরিস্ট পুলিশ। সেবার মান আরও উন্নত করতে সব পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের দেশে ও বিদেশে আধুনিক ও যুগোপযোগী প্রশিক্ষণের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, জঙ্গি, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ওয়ারেন্টভুক্ত ও সাজাপ্রাপ্ত আসামিসহ নিয়মিত মামলার আসামি গ্রেপ্তার, অবৈধ অস্ত্র ও বিস্ফোরক এবং মাদকদ্রব্যসহ সব অবৈধ মালামাল উদ্ধারকল্পে অব্যাহতভাবে পুলিশের অভিযান পরিচালিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, জনগণের জীবন ও সম্পদের নিরাপত্তা বিধানে পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের আন্তরিকভাবে কাজে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত ও গুরুতর আহত পুলিশ সদস্যদের অনুকূলে এককালীন থোক অনুদানের পরিমাণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। সেইসঙ্গে কর্তব্যরত অবস্থায় গুরুতর আহত পুলিশ সদস্যদের দেশে ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

সূত্র: বাসস

এই বিভাগের আরো সংবাদ