উনিশের মুস্তাফিজুরেই ধরা ধোনিরা, সিরিজ বাংলাদেশের
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ক্রিকেট

উনিশের মুস্তাফিজুরেই ধরা ধোনিরা, সিরিজ বাংলাদেশের

হেসে-খেলে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ভারতের বিপক্ষে জান জি আইসক্রিম ওয়ানডে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ২০০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৬ উইকেট হাতে রেখে ৩৪তম ওভারের শেষ বলে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় টাইগাররা। জয়সূচক রানটি আসে সাব্বির রহমানের (২২) ব্যাট থেকে। অপর প্রান্তে ৫১ রানে অপরাজিত ছিলেন সাকিব আল হাসান।

Sabbir Rahman

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে ৬ উইকেটে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। ৩৮তম ওভারের শেষ বলে জয় নিশ্চিত হওয়ার পর সাব্বির রহমানের উল্লাস।

আর বাংলাদেশের ঐতিহাসিক এই জয়ের মূল নায়ক নবাগত মুস্তাফিজুর রহমান; যার জন্য তিনি এই ম্যাচেও পেয়েছেন ম্যান অব দ্য ম্যাচের মর্যাদা।

ভারতের দেওয়া ডার্কওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ২০০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ঝড়ো সূচনা করে তামিম-সৌম্য।  মাত্র ৬ ওভারে ৩৪ রান সংগ্রহ করে তারা। কিন্তু ৬.২ ওভারের মাথায় মেজাজ হারিয়ে শেখর ধাওয়ানের হাতে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে  সাজঘরে ফেরেন তামিম।  ধাওয়াল কুলকার্নির বলে আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ১৩ রান।

Shakib Al Hasan

জয়ের পর স্ট্যাম্প হাতে নিয়ে গ্যালারির দিকে যাচ্ছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

১৬.৪ ওভারে অশ্বিনের স্লো হয়ে যাওয়া বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন  দুর্দান্ত খেলতে থাকা সৌম্য। তিনি করেন ৩৪ রান। ১৯.২ ওভারে অক্ষর প্যাটেলের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন লিটন দাস। আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ৩৬ রান। এরপর ২৯.১ ওভারে ৩১ করে রান আউট হন মুশফিকুর রহিম।

রোববার  মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে সিদ্ধান্ত নেন ভারতের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। বেলা ৩টায় খেলাটি শুরু হয়। ম্যাচের ২য় বলেই সাজঘরে ফেরেন রোহিত শর্মা (০)। মুস্তাফিজুর রহমানের বলে রোহিতের ব্যাট থেকে অসাধারণ ক্যাচটি লুফে নেন নাসির হোসেন ।

Bangladesh

ভারতের বিপক্ষে ১ ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয়ের পর মাশরাফিবাহিনী।

১২.৩ ওভারে বিরাট কোহলিকে (২৩) এলবিডব্লিউ এর ফাঁদে ফেলেন নাসির হোসেন। ২য় উইকেটে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শেখর ধাওয়ানের সঙ্গে ৭৪ রানের জুটি গড়েন তিনি।

এরপর ২০.৫ ওভারে ভারতীয় শিবিরে আবারও আঘাত হানেন নাসির হোসেন।  তার বলে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ধাওয়ান (৫৪)।

Soumya Sarkar

ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকারের একটি শট।

ম্যাচের ২১.৪ ওভারে আম্বাতি রাইডুকে (০) সাজঘরে ফেরান রুবেল হোসেন। এবারও অসাধারণভাবে রাইডুর ক্যাচটিও  লুফে নেন নাসির।

এরপরই শুরু হয় বিস্ময়-বালক ১৯ বছরের মুস্তাফিজুর রহমানের তাণ্ডব-লীলা। ৩৫.৩ ওভারে তার বলে লিটনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন সুরেশ রায়না (৩৪)। এ নিয়ে টানা দুই ম্যাচেই বাংলাদেশি এই উদীয়মান পেসারের বলে আউট হন রায়না।

ম্যাচের ৪০তম ওভারে আরও ভয়ানক হয়ে ওঠেন মুস্তাফিজুর; ওভারের ৩য় ও ৪র্থ বলে ধোনি (৪৭) ও অক্ষর প্যাটেলকে (০)সাজঘরে ফেরান তিনি।  ও প্যাটেল (০)। আর এর মাধ্যমে গত ম্যাচে তাকে ধোনির অযথা ধাক্কা মারার মধুর প্রতিশোধও নেন তিনি।

Mustafizur Rahman

জয়ের পর মুস্তাফিজুর রহমানকে তুলে টাইগারদের উল্লাস।

৪২ ওভারের শেষ বলে রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে আউট করে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও ৫ উইকেট তুলে নেন মুস্তাফিজুর। লিটন কুমার দাসের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে আউট হওয়ার আগে অশ্বিন করেন ৪ রান। এর মাধ্যমে পরপর দুই ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়ে ছুঁয়ে ফেললেন জিম্বাবুয়ের ব্রায়ান ভেটরিকে। তিনি ২০১১ সালে এই বাংলাদেশের বিপক্ষেই অভিষেকে পরপর দুই ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়েন।

বৃষ্টির পর রাত সোয়া ৮টার দিকে খেলা শুরু হলে ৪৪ ওভারের শেষ বলে রবীন্দ্র জাদেজাকে (১৯) বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান মুস্তাফিজুর। এটি বাংলাদেশের বাঁহাতি এই পেসারের ৬ষ্ঠ উইকেট। এরপরই ৪৫ ওভারের শেষ বলে ভারতের ইনিংসের ইতি টানেন রুবেল হোসেন। তার উঠতি বাউন্সারে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ভুবনেশ্বর কুমার (৩)। এর মাধ্যমে ২০০ রানেই গুটিয়ে যায় সফরকারীরা।

এর আগে বৃষ্টির কারণে খেলা প্রায় সোয়া এক ঘণ্টা বন্ধ থাকে।  বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচটির খেলা নেমে আসে ৪৭ ওভারে; বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২০০।

এই বিভাগের আরো সংবাদ