টপ টেন ক্রিমিনালে মোদি!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » টুকিটাকি

টপ টেন ক্রিমিনালে মোদি!

ইন্টারনেটে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল ইমেজে ‘টপ টেন ক্রিমিনাল’ দিয়ে সার্চ দিলেই আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেন, ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড অপরাধী দাউদ ইব্রাহিমের সাথে চলে আসছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নামও। এ  নিয়ে তীব্র বিতর্কের মধ্যে ক্ষমা চেয়েছে গুগল। তারা জানিয়েছে, ইমেজ সার্চের ফলাফলে মোদির ছবি দেখা যাওয়ায় যে সংশয় বা ভুল বোঝাবোঝি হয়েছে তার জন্য তারা ক্ষমাপ্রার্থী।

Top 10 criminals

 

বৃহস্পতিবার ভারতের সংবাদমাধ্যম এপিবি আনন্দ জানায়, বিশ্বের কুখ্যাত দশ অপরাধীর তালিকায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নাম। এই তালিকা ঘিরে তীব্র ক্ষোভ-বিতর্কের মধ্যে ক্ষমা চাইল ইন্টারনেটের সর্বাধিক জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল। বুধবার গুগল জানিয়েছে, ইমেজ সার্চ ফলাফলে মোদির ছবি দেখা যাওয়ায় যে সংশয় বা ভুল বোঝাবোঝি হয়েছে তার জন্য তারা ক্ষমাপ্রার্থী। গুগলের এক মুখপাত্র প্রেস বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এই ঘটনা নিয়ে তারা বিব্রত। সার্চের রেজাল্ট গুগলের অভিমতও নয়। ইন্টারনেটে ছবির বর্ননা থেকে এ ধরনের বিস্ময়কর রেজাল্ট দেখা যেতে পারে। ভবিষ্যতে যাতে এমন ভূল না হয় তার জন্য অ্যালগোরিদাম বা গাণিতিক পদ্ধতির উন্নতি ঘটানো হবে। এর ফলে যা হয়েছে তার জন্য ক্ষমাপ্রার্থনাও করেছে গুগল।

গুগল আরও জানিয়েছে, ব্রিটেনের এক দৈনিক সংবাদপত্রের খবর থেকেই এমন রেজাল্ট এসেছিল। ওই খবরে মোদির ছবিও ছিল। মোদীর ছবি সম্বলিত বিভিন্ন প্রতিবেদন সার্চ ইঞ্জিনের ফলাফলে উঠে এসেছে। অপরাধের অভিযোগ রয়েছে এমন রাজনৈতিক নেতাদের সম্পর্কে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়েই ওই প্রতিবেদনগুলি লেখা হয়েছিল। ওই প্রতিবেদনগুলিতে অপরাধমূলক কাজকর্মের সঙ্গে মোদিকে জড়ানো হয়নি।

উল্লেখ, গুগলের ফটো সার্চ ইঞ্জিনে গিয়ে ‘টপ ১০ ক্রিমিনাল’ লিখে সার্চ করলেই অন্যান্যদের সঙ্গে তালিকায় দেখা যাচ্ছে মোদিকে। তালিকায় প্রথমেই দেখা যাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্যাংস্টার আল কাপোনে-কে। ঠিক তারপরই দ্বিতীয় ছবিতে দেখা যাচ্ছে মোদিকে।

এই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই মাইক্রো-ব্লগিং সাইট টুইটারে ঝড় ওঠে। মোদি-অনুগামীরা এই ছবি অবিলম্বে প্রত্যাহার করার দাবি তুলেছে। অন্যদিকে মোদির সমালোচকরা এই বিষয়টিকে হাতিয়ার করে তাকে আক্রমণে মুখর হয়ে উঠেছে। তাদের দাবি, ২০০২ সালে গুজরাটে হিংসার ঘটনা গুগলের হিস্ট্রি ইঞ্জিনে রয়েই গিয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ