আজও দর পতন সাইফ পাওয়ার ও সামিট পোর্টে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » খাত/কোম্পানি পর্যালোচনা

আজও দর পতন সাইফ পাওয়ার ও সামিট পোর্টে

দুই কোম্পানির লোগো

দুই কোম্পানির লোগো

বেশ ক’দিন টানা দর বৃদ্ধির পর হঠাৎ হোঁচট খেয়েছে সেবা খাতের কোম্পানি  পাওয়ারটেক ও সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট। মঙ্গলবার পর পর দ্বিতীয় দিনের মতো শেয়ারের দর হারিয়েছে কোম্পানি দুটি।

আজ মঙ্গলবার  ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সাইফ পাওয়ারটেকের দর কমেছে ৭ দশমিক ৩০ শতাংশ। অন্যদিকে সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের ৩ দশমিক ২৪ শতাংশ দর কমেছে।

যে ইস্যুকে সামনে রেখে শেয়ার দুটির দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়ছিল, সেই ইস্যুতেই  হোঁচট খেল কোম্পানি দুটি।

বিশ্লেষকদের মতে, চট্টগ্রাম বন্দরের নিউমুরিং কনটেইনার টার্মিনাল পরিচালনার কাজ পেতে আগ্রহী ছিল কোম্পানি দুটি। সোমবার ছিল এ সংক্রান্ত দরপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়। এ কাজটি পেলে মুনাফা অনেক বেড়ে যাবে, এমন আশাবাদে দাম বাড়ছিল কোম্পানি দুটির শেয়ারের।

রোববার একটি কোম্পানির রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট  দরপত্র প্রক্রিয়া ৩ মাসের জন্য স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয়। এর আলোকে সোমবার বন্দর কর্তৃপক্ষ প্রক্রিয়াটি স্থগিত ঘোষণা করে।

হাইকোর্টের আদেশের প্রভাবে সোমবার সাইফ পাওয়ারটেক এবং সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের শেয়ারের দাম কমে যায়। এদিন ডিএসইতে সাইফ পাওয়ারটেকের শেয়ারের দাম কমে প্রায় ৮ শতাংশ। অন্যদিকে সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের দাম কমে প্রায় ৫ শতাংশ। পতনের এ ধারা অব্যাহত থাকে মঙ্গলবারও।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট ২ টাকা ১০ পয়সা দর কমে সর্বশেষ ৬২ টাকা ৮০ পয়সায় লেনদেন হয়। এদিন কোম্পানির ২৮ লাখ ২৯ হাজার ৮৪৩টি শেয়ার লেনদেন হয়। যার বাজার মূল্য ছিল ১৮ কোটি ২ লাখ টাকা।

অন্যদিকে সাইফ পাওয়ারটেক ৬ টাকা ৪০ পয়সা দর কমে সর্বশেষ লেনদেন হয় ৮১ টাকা ৩০ পয়সায়। এদিন কোম্পানির ২৩ লাখ ৮১ হাজার ৯৪৭টি শেয়ার লেনদেন হয়। যার বাজার মূল্য ছিল ১৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

বিশ্লেষকদের মতে, টানা মূল্যবৃদ্ধির কারণে মূল্য সংশোধনের বিষয়টি অনিবার্য ছিল। দরপত্র প্রক্রিয়া স্থগিত না হলে হয়ত আর দু’এক দিন পর এ সংশোধন হত। কিন্তু দরপত্র স্থগিত হয়ে যাওয়ায় সংশোধনের পর্যায়টি এগিয়ে আসে।

অর্থসূচক/এসএ/

এই বিভাগের আরো সংবাদ