আজ  আর্থিক খাতের রেগুলেটরদের সমন্বয় সভা
শুক্রবার, ২৯শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

আজ  আর্থিক খাতের রেগুলেটরদের সমন্বয় সভা

bb, bangladesh bank, bsec

বাংলাদেশ ব্যাংক ও বিএসইসির লোগো

আজ বুধবার আর্থিক খাতের সব রেগুলেটরের সমন্বয় সভা। বিকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি), বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ), রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস (আরজেসি) এবং মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটির (এমআরএ) প্রতিনিধিরা অংশ নেবে।

রেগুলেটরদের এমন সমন্বয় নিয়মিত ঘটনা হলেও এবারের বৈঠককে ঘিরে ব্যাংক আগ্রহ পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টদের।বিশেষ করে গত মাসে পুঁজিবাজারে দর পতন তীব্রতর হয়ে উঠলে বাংলাদেশ ব্যাংকের কিছু ইস্যু জোরালোভাবে আলোচনায় উঠে আসে। আবার চলতি মাসের মাঝভাগ থেকে সরকারের প্রভাবশালী কয়েকজন নীতিনির্ধারক পুঁজিবাজার ও বাংলাদেশ ব্যাংক ইস্যুতে বক্তব্য রাখায় তা নতুন মাত্রা পায়।

উল্লেখ, বাংলাদেশ ব্যাংক সংশ্লিষ্ট দুটি ইস্যুর কারণে পুঁজিবাজার স্থিতিশীল হতে পারছে না বলে সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ।

প্রথমত ব্যাংক কোম্পানি আইন সংশোধন করে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের গ্রহণযোগ্য বিনিয়োগসীমা অনেক কমিয়ে ফেলায় কিছু ব্যাংকের বিনিয়োগের পরিমাণ সীমাতিরিক্ত হয়ে পড়েছে। আগামী বছরের জুনের মধ্যে এ বিনিয়োগ সমন্বয়ের জন্য চাপ দিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক।  মন্দা বাজারে শেয়ার বিক্রি করে বিনিয়োগ সমন্বয় দুরুহ হয়ে পড়েছে। তাদের শেয়ার বিক্রির চাপ নিতে পারছে না বাজার। আবার কম দামে শেয়ার বিক্রি করে সংশ্লিষ্ট ব্যাংককেও লোকসান গুণতে হচ্ছে।

অন্যদিকে সংশোধিত ব্যাংক কোম্পানি আইন বাস্তবায়নে বাংলাদেশ ব্যাংক যে বিধিমালা প্রণয়ন করেছে, তাতে অযৌক্তিক অনেক বিষয় অন্তর্ভুক্ত করে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমার গলা চেপে ধরা হয়েছে। নতুন বিধি অনুসারে, পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগের পরিমাণ নির্ণয়ে সহযোগী প্রতিষ্ঠানের (ব্রোকারহাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংক) পরিশোধিত মূলধন, বন্ডে বিনিয়োগ, তালিকা বহির্ভূত কোম্পানিতে করা বিনিয়োগও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

স্টক এক্সচেঞ্জের ব্রোকার, বিনিয়োগকারী, এমনকি অর্থনীতিবিদরা বিনিয়োগের পরিমাণ নির্ণয়ের এ পদ্ধতির সমালোচনা করছেন। তারা বিধিমালা সংশোধন করে সহযোগী প্রতিষ্ঠানের  মূলধন ও তালিকা বহির্ভুত কোম্পানির বিনিয়োগকে বাদ দেওয়ার তাগিদ দিয়ে যাচ্ছেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ