বিশ্বে পর্যটকসংখ্যা বেড়ে শত কোটিতে : জাতিসংঘ

tourism

tourismবিশ্ব অর্থনীতি মন্দা সত্ত্বেও ২০১৩ সালে বিশ্বে আন্তর্জাতিক পর্যটক সংখ্যা বেড়ে শত কোটিতে পৌঁছেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলগুলোতে। জাতিসংঘের এক সূত্রের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিশরের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতা ও বিশ্ব অর্থনীতি মন্দা থাকার পরও এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলগুলোতে পর্যটকদের উপস্থিতি ৫ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৩ সালে বিশ্বে মোট পর্যটকের সংখ্যা দাঁড়ায় ১০০ কোটি ৯০ লাখে। চলতি বছরে পর্যটকের সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পাবে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের বিশ্ব পর্যটন সংস্থা।

জাতিসংঘের বিশ্ব পর্যটন সংস্থার সেক্রেটারি জেনারেল তালেব রিফাই জানিয়েছেন, বিশ্বের অর্থনৈতিক, ভূ-রাজনৈতিক চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করে বিশ্বের একমাত্র পর্যটন খাতই তার সফলতা ধরে রাখতে পেরেছে। পর্যটন বাণিজ্যের প্রসারসহ জ্বালানি বৃদ্ধি ও চাকরির সুযোগ সৃষ্টিতে অবদান রেখেছে এই খাত।

২০১৩ সালকে উল্লেখযোগ্য বছর হিসেবে ঘোষণা করে তিনি জানান, অনেক দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে এই খাত উল্লেখযোগ্য সফলতা বয়ে নিয়ে এসেছে। চলতি বছরে তা অর্থনৈতিক উন্নয়নে  আরও বেশি  অবদান রাখতে সক্ষম হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। এছাড়া এই  খাতের টেকসই প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে  বিশ্বের  অন্যান্য  দেশগুলোর সহায়তার আহ্বান জানান তিনি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলগুলোতে আন্তর্জাতিক পর্যটকদের উপস্থিতি বেড়েছে দ্রুত গতিতে। ২০১২ সালে ৬ শতাংশ বেড়ে ২০১৩ সালে এসব অঞ্চলে পর্যটকদের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ২৫ কোটিতে। এর মধ্যে দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়ার বেড়েছে ১০ শতাংশ।

এদিকে গত বছরে ইউরোপীয় পর্যটন অঞ্চলগুলোতে পর্যটক সংখ্যা ৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬ কোটিতে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ১৬ কোটি ও আফ্রিকায় ৫ কোটি ৬০ লাখ পর্যটক এসেছে ওই বছরে। কিন্তু মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে সহিংসতা, রাজনৈতিক অস্থিরতা স্থিতিশীল থাকায় এখানে বাইরের দেশগুলো থেকে আসা পর্যটকের সংখ্যা বাড়েনি।

২০১২ সালে চিন পর্যটন বাবদ খরচ করেছে ১০ হাজার ২০০ কোটি ডলার। ২০১৩ সালের প্রথম ৯ মাসেই তাদের ব্যয় বৃদ্ধি পায় ২৮ শতাংশ, অন্যদিকে রাশিয়া আগের বছরের তুলনায় ব্যয় বাড়িয়েছে ২৬ শতাংশ।

এস রহমান/ এআর