ফরিদপুরের ভাঙ্গায় উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত তরুণীর লাশের পরিচয় মিলেছে

foridpur
ফরিদপুর মানচিত্র

ফরিদপুর ম্যাপফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার কাউলিবেড়া ইউনিয়নের নিশ্চিতপুর গ্রামের সরিষা ক্ষেত থেকে গত মঙ্গলবার উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত তরুণীর লাশের পরিচয় মিলেছে। ওই তরুণীর নাম বীথি আক্তার। সে ফরিদপুর জেলার তালমা ইউনিয়নের তালমা গ্রামের কাজী পরিবারের সিরাজ কাজীর মেয়ে।

জানা গেছে, নিহত তরুণীর মা ফাতেমা বেগম সংবাদপত্র পড়ে গত রোববার রাতে ভাঙ্গা থানায় এসে লাশের ছবি দেখে শনাক্ত করেন। এ ব্যাপারে ফাতেমা বেগম বাদি হয়ে ভাঙ্গা থানায় দুই জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে নাসিরাবাদ গ্রাম হতে আসামি দীপু (২৮) কে হলুদ অ্যাপচি মটর সাইকেল সহ আটক করেছে। অপর আসামি দীপুর ভাই তারেককে ধরতে পুলিশি অভিযান চলছে বলে জানায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা থানার উপ-পরিদর্শক সাঈফুল।

নিহত বীথির মা বলেন, বীথির পিতাকে ২০০৮ সালে সৌদি আরবে সন্ত্রাসীরা মেরে ফেলে। তখন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান আমাদের পরিবারকে নানাভাবে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন। বীথি তার খুবই প্রিয় মেয়ে হিসেবে স্থান করে নেয়। বীথিকে ঢাকার একটি পত্রিকা অফিসে কাজের সুযোগ করে দেওয়া হয়। পত্রিকায় কাজ করার সুবাদে ভাঙ্গা থানার নাসিরাবাদ ইউনিয়নের তারেক ও দীপু সাথে ঢাকার নিউ মার্কেট এলাকায় পরিচয় হয় বীথির। তারা দুইভাই ঢাকায় নিউ মার্কেট এলাকার দোকানদারি করে। ঘটনার দিন রাতে আমার মেয়েকে কুয়াকাটায় নিয়ে যাবার কথা বলে তারেক তার মটর সাইকেল যোগে ঢাকা থেকে রওনা হয়। এর পর আর আমার মেয়ের কোনো সন্ধান আমরা পাইনি। আমার মেয়ের সাথে তারেকের দীর্ঘদিনের সর্ম্পক থাকায় সে আমাদের বাড়ি তালমাতেও অনেক বার বেড়াতে এসেছিল। আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।

এআর