রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকল বাঁচাতে উদ্যোগী শিল্পমন্ত্রী

amu
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু (ফাইল ছবি)

amuরাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকলগুলোকে লাভজনক করতে দ্রুত বাস্তবসম্মত পরিকল্পনা প্রণয়ন করে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের নির্দেশনা দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেন, দেশের ঐতিহ্যবাহী কৃষিভিত্তিক ভারি শিল্প হিসেবে চিনিশিল্পকে লোকসানের হাত থেকে রক্ষা করতে পণ্য বৈচিত্র্যকরণের উদ্যোগ নিতে হবে। এ লক্ষ্যে তিনি অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে চিনিকলগুলোর বাস্তব অবস্থা বিবেচনা করে কার্যকর কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের তাগিদ দেন।

সোমবার শিল্প মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন (বিএসএফআইসি) এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তিনি এ নির্দেশনা দেন।

বৈঠকে শিল্প সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জি.এম. জয়নাল আবেদীন ভূইয়া ও সুষেন চন্দ্র দাস, বিএসএফআইসি’র চেয়ারম্যান মাহমুদ উল হক ভূঁইয়াসহ শিল্প মন্ত্রণালয় ও করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আমির হোসেন আমু বলেন, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালের মধ্যে কোন ধরনের নীতি ও কর্মসূচির ফলে বিএসএফআইসি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছিল, তা বিবেচনায় এনে নতুন করে উদ্যোগ নিতে হবে। একই সাথে ২০০১ সালের পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত লোকসানের পেছনে দায়ী কারণগুলো চিহ্নিত করে এর সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন। তিনি চিনিকলগুলোতে লোকসান কমাতে অনুৎপাদন মৌসুমের’ সুগার থেকে রিফাইন সুগার উৎপাদনের পরামর্শ দেন।

উল্লেখ্য, ২০১২-২০১৩ মৌসুমে বিএসএফআইসি’র অধীন চিনিকলগুলোতে এক লাখ ৭ হাজার ১২৩ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদিত হয়েছে। চলতি উৎপাদন মৌসুমে এক লাখ ৩৮ হাজার ১৫০ মেট্রিক টন লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে এ পর্যন্ত ৪৪ হাজার ৭৪৬ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদিত হয়েছে। বর্তমানে বিএসএফআইসি’র কাছে এক লাখ ৪৭ হাজার ৬৭৭ মেট্রিক টন চিনি মজুদ রয়েছে।

জিইউ