রাবিতে সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

rajshahi

rajshahiরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বিভিন্ন বিভাগে চালুকৃত সান্ধ্যকালীন মাস্টার্স কোর্স বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। সোমবার সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর ব্যানারে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থী আবু সুফিয়ান বখশি, ইতিহাস বিভাগের সুমন অগাস্টিন সরেন, সামাজকর্ম বিভাগের আব্দুল্লাহ আল মুয়িজ, নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের আলমগীর হোসেন সুজন, সমাজকর্ম বিভাগের উৎসব মোসাদ্দেক, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবিনা ইয়াসমিন, রাকিব সোহান প্রমুখ।

এ সময় মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, এভাবে যদি ক্যাম্পাসে বেরসকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুকরণে কোর্স চালু করে তবে অচিরেই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেবে। আমরা এইসব কোর্স বন্ধের জোরালো দাবি জানাচ্ছি।

তারা আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পাবলিক এ বিশ্ববিদ্যালয়টিকে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত করণের দ্বার উন্মৃক্ত করে দিচ্ছে। মেধা বিকাশের এই প্রতিষ্ঠান ক্রমেই সনদ বিক্রির বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিনত হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

চলতি মাসে সামাজিক অনুষদ বিভাগের ৭টি বিভাগে সান্ধ্যকালীন স্নাতকোত্তর কোর্স চালুর সিদ্ধান্ত নেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এরই ধারাবাহিকতায় বিভাগগুলো উচ্চ টিউশন মূল্যে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। যার প্রতিবাদে শনিবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য আন্দোলনে নামে প্রগতিশীল ধারার চারটি ছাত্র সংগঠন। পরে সাধারণ শিক্ষার্থীরাও প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সাথে একত্রিত হয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে।

আগে থেকে বাণিজ্য অনুষদ ভুক্ত চারটি বিভাগে সান্ধ্যকালীন এমবিএ কোর্স চালু রয়েছে। ২০১০ সালে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের তোপে একবছর বন্ধ থাকলেও পরবর্তীতে ফের চালু করে কোর্সগুলো। সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনে সংহতি জানিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সুস্মিতা চক্রবর্তী, নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহকারি অধ্যাপক বখতিয়ার আহমেদ। এছাড়াও মানববন্ধনে সংহতি জানিয়েছেন রাবির প্রগতিশীল ছাত্রজোট, কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন।