‘গণতন্ত্রের পূর্বশর্ত না মানলে নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে না’

mahmud
করেছেন বাংলাদেশ ফেডারেল বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব শওকত মাহমুদ

Swakat_mahmudগণতন্ত্রের পূর্বশর্ত না মানলে দেশে কখনোই সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব শওকত মাহমুদ।

সোমবার দুপুরে ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত ‘নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সকল দলের অংশগ্রহণে গ্রহণযোগ্য জাতীয় নির্বাচনের দাবি’ শীর্ষক সভায় তিনি একথা বলেন।

গণতন্ত্রের নামে দেশে ফ্যাসিবাদ চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধান বিরোধীদল বিএনপি-জামায়াতের অফিসে তালা দেওয়া হয়েছে, গণমাধ্যমের কর্মীদের ওপর পুলিশ নিয়ে চড়াও হচ্ছে সরকার, বিভিন্ন পেশাজীবীদের বদলিসহ নানারকম হয়রানি চলছে।

পেশাজীবীদের স্বার্থ আদায় না হওয়া পর্যন্ত সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন চালানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “সাংবাদিকদের রিমান্ড মঞ্জুর করার পরে  বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ হয়েছে।

‘দৈনিক আমার দেশ’ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তি এবং বন্ধ গণমাধ্যম খুলে দেয়ার দাবি এবং অন্যান্য পেশাজীবীদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে এই আন্দোলন চলতে থাকবে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ভারত আস্ফালন করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের স্বেচ্ছাচারীতাকে সমর্থন দিয়ে ভারত বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনায় কষাঘাত করা হয়েছে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে অনধিকার চর্চা করে দেশকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে ভারত।

বিএফইউজে সভাপতি রুহুল আমীন গাজী বলেন, আন্দোলনের চূড়ান্ত সময় এসেছে। স্বৈরাচারী সরকারের পতন ঘটানোর লক্ষ্যে দেশের পেশাজীবীসহ সাধারন জনগণ রাজপথে নেমেছে, আর দেশের মানুষের অংশ হিসেবে আমরাও ঘরে বসে থাকবো না।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার বলেন, “আজ সূর্যাস্তের আগে আটক সাংবাদিকদের ছেড়ে না দিলে এই সরকার পতনের দিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে যাবে।”

সরকারের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ডাক দিয়ে সমাবেশ শেষে রুহুল আমীন গাজীর নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়।

বিএফইউজের একাংশের সভাপতি রুহুল আমীন গাজীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি’র গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানা উল্লাহ মিয়া, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন আহমেদ, জাবি’র সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুস্তাহিদুর রহমান, মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খলিলুর রহমান প্রমুখ।

জেইউ/