নতুন সরকারের প্রথম একনেক সভা; ৭৭৩৫ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

acnecনতুন সরকারের প্রথম একনেক সভায় অনুমোদন পেল ৭হাজার ৭শ ৩৫ কোটি টাকার ১৩টি প্রকল্প ।সরকার গঠনের পর আজই প্রথম জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) এ বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হল।

রোববার  সকাল ১০টায় শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধানমন্ত্রী ও একনেক সভাপতি শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করেন।

একনেকে অনুমোদন দেওয়া ১৩ টি প্রকল্প-

মার্চে অনুষ্ঠিতব্য ‘টি-২০ বিশ্বকাপ’এর জন্য সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা হচ্ছে মিরপুর ক্রিকেট স্টেডিয়ামের। স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীনে ‘ইম্প্রুভমেন্ট অব রোড ইনফ্রাস্ট্রাকচার অ্যান্ড বিউটিফিকেশন ওয়ার্ক অ্যারাউন্ড মিরপুর শের-ই-বাংলা ন্যাশনাল স্টেডিয়াম অ্যান্ড মেজর রোডস অব ঢাকা সিটি ফর আইসিসি ওয়াল্ড কাপ টি-২০ বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১শ ১৫ কোটি টাকা। প্রকল্পটি অনূমোদন পেয়েছে।

দেশের বিভিন্ন জেলায় ৩০টি টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার (টিটিসি) প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে (২য় সংশোধিত) ৮শ ২৬ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। প্রকল্পটির ব্যয় সরকারি খাত থেকে মেটান হবে।

৪শ ২৩ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে সমন্বিত খামার ব্যবস্থাপনা অঙ্গ, কৃষি উৎপাদন ও কর্মসংস্থান প্রকল্পে। সরকারি খাত থেকে ১শ ৮ কোটি এবং প্রকল্প সাহায্য থেকে ৩শ ২৪ কোটি টাকা দিয়ে প্রকল্পটি সম্পন্ন করা হবে।

হায়ার এডুকেশন কোয়ালিটি এনহ্যান্স প্রকল্পের জন্য ২ হাজার ৫৪ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। এটি চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে। সরকারি খাত থেকে ২শ ৬৩ কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য থেকে ১হাজার ৭শ ৯১ কোটি টাকা দেওয়া হবে।

দেশে ১শ উপজেলা টেকনিক্যাল স্কুল (টিএস) প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৯শ ২৪কোটি টাকা।

অনুমোদন পাওয়া মিউনিসিপ্যাল গভর্ন্যান্স অ্যান্ড সার্ভিসেস প্রকল্পের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২হাজার ৪শ ৭১ কোটি টাকা। সরকারি খাত থেকে ৫শ ১৭কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য থেকে ১হাজার ৯শ ৫৪ কোটি টাকা দেওয়া হবে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সংস্কার (২য় সংশোধিত) একটি প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩শ ১৫কোটি টাকা। সরকারিখাত থেকে ৭৮কোটি টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য থেকে ২শ ৩৭ কোটি টাকা দেওয়া হবে।

মধুমতি নদীর ওপর কালনা সেতু নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২শ ৪৫কোটি টাকা।

কিশোরগঞ্জ-করিমগঞ্জ-মিঠামইন-সড়ক উন্নয়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৮৯ কোটি টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে সরকারি তহবিল থেকে।

পত্নীতলা-সাপাহার-রহনপুর সড়ক উন্নয়নের প্রকল্পে ১শ ২৮কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।

এছাড়া, ৩৩কোটি টাকা ব্যয়ে কানসাট-রহনপুর-ভোলাহাট সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হবে। প্রকল্পটি সরকারি তহবিল থেকে করা হবে।

৫৩ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে শহীদ মনসুর আলী সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে। বিরুলিয়া-আশুলিয়া সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫০ কোটি টাকা।

সভা শেষে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল অনুমোদিত প্রকল্পসমূহের বিভিন্ন দিক নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে সংক্ষিপ্ত কথা বলেন।

তিনি বলেন, আজকের একনেক সভায় ৬টি মন্ত্রণালয়ের মোট ১৩টি প্রকল্প অনুমোদন করা হয়েছে। এসব প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ৭হাজার ৭শ ৩৫ কোটি টাকা।এছাড়া প্রকল্প ব্যয়ের ৩ হাজার ৫৮৮ কোটি টাকা সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে এবং অবশিষ্ট ৪হাজার ১শ ৪৭কোটি টাকা প্রকল্প সাহায্য থেকে মেটানো হবে।

একনেক সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীসহ একনেক এর অন্যান্য সদস্যরা এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীরা, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা, মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ প্রমুখ।

কবির/