ঝিনাইদহে আ.লীগের দু’গ্রুপের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ; নিহত ২, আহত ১০

Jhenidah-murder-news-2

Jhenidah-murder-news-2ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সঙ্গে পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষে ২জন নিহত ও অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। শনিবার রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার টিকারি গ্রামের পুরাতন পাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা হলেন- আরিফ হোসেন (২৪) ও শাহ আলম (২৮)। নিহত আরিফ হোসেন টিকারি গ্রামের তৈয়ব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার টিকারি বাজারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গতকাল বিকেলে স্থানীয় ফুরসন্দি ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম শিকদার ও পরাজিত ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবদুল মালেকের গ্রুপের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় শহিদুল ইসলামের দুই সমর্থককে পিটিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে টিকারি গ্রামের পুরাতন পাড়ায় দুই গ্রুপের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ৬টি বাড়িতে ভাংচুর চালানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করতে গেলে উভয় গ্রুপ পুলিশের ওপর হামলা চালায়।

পুলিশ আত্মরক্ষার্থে প্রথমে টিয়ারসেল ও পরে ৮-১০ রাউণ্ড শর্টগানের গুলি চালায়। এ সময় পুলিশের গুলিতে ঘটনাস্থলেই আরিফ হোসেন নামে একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়। আহতদের ঝিনাইদহ ও মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাত ১২টার দিকে মাগুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শাহ আলম নামে একজন মারা যায়।

ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনার পর এলাকায় অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কেউ আটক হয় নি।

কেএফ/এএস