মেলায় তানিনের ভিন্ন ধাচের নতুন খাট ও টেবিল

তানিনের খাট

তানিনের খাটমাঝখানে দুই ভাঙ্গা দিয়ে মাত্র এক ফুট জায়গায় গুটিয়ে রাখতে পারবেন একটি খাটকে।দরকার হবে না কোনো ধরনের তোশক কিংবা বেডশীটের।থাকবে না ঘুনে ধরার কোনো ভয়।প্রয়োজনমত হাতে করে খুব সহজে একস্থান থেকে অন্যস্থানে নেওয়া যাবে এ খাট।এত সব সুবিধা দিয়ে এ খাট নিয়ে এল তানিন ফার্নিচার।

১৯তম বাণিজ্য মেলায় ১৬নং প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাবে নতুন ডিজাইনের এ খাটটি।স্টিলের পাত দিয়ে তৈরি এটি।এর সাথে এটাচ করা আছে কালার বেড। এ খাটের রয়েছে চারটি পার্ট।

পিকনিক স্পট কিংবা সী বিচ যেকোনো জায়গায় খুব সহজে নিয়ে যেতে পারবেন এটি।সিঙ্গেল এবং সেমি ডাবল এ দুই ধরনের খাট রয়েছে তানিন প্যাভিলিয়নে।সিঙ্গেল খাটের দাম ধরা হয়েছে নয় হাজার ৫০০ টাকা আর সেমি ডাবলটির দাম ১৬ হাজার টাকা।

তানিম চেয়ারএছাড়া এ কোম্পানি নিয়ে এল নতুন আঙ্গিকের রিভলভিং চেয়ার।এ চেয়ারের সাথে যুক্ত করা হয়েছে একটি মিনি টেবিল।ইচ্ছেমত যেকোনো দিকে ঘুরানো যাবে এটি।টেবিলে ল্যাপটপ ছাড়াও প্রয়োজনীয় যে কোনো প্রয়োজনীয় জিনিষ রাখা যাবে।শুধু তা নয় এটাকে উঁচু-নিচু করে ছোট বড় যে কেউ ব্যবহার করতে পারবে।এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ হাজার ৯শ ৫০ টাকা।

প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা ভিড় করে দেখছে তানিনের নতুন আঙ্গিকের এই দুটি পণ্য।

রাজধানীর যাত্রা বাড়ি থেকে পরিবার নিয়ে মেলায় ঘুরতে আসা শহিদুল ইসলাম বলেন,এ খাটটি একবারেই নতুন।সহজে যেকোনো জায়গায় নেয়া যাবে।

তানিনের সহকারী ম্যানেজার(কর্পোরেট সেল)মো.রবিউল হাসান অর্থসূচককে জানান,দর্শনার্থীরা এসে এসে নতুন এই ফার্নিচারগুলো দেখছে।তবে বেচা-বিক্রি এখনও সেভাবে শুরু হয়নি।

বেচা-বিক্রি কম কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন,এবার রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে দেশের অর্থনীতি অনেকটাই ভেঙ্গে পড়ছে।তাই মানুষ ভেবেচিন্তে কেনাকাটা করছে।

তবে নতুন আঙ্গিকের এ ধরনের পণ্যে সাড়া পাবে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, তানিনই প্রথম এই দুটো পণ্য সম্পূর্ণ ভিন্ন ধাচে তৈরি করেছে। তাই খুব শিগগিরই ক্রেতাদের থেকে সাড়া পাওয়া যাবে।

জেইউ/