দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশি হস্তক্ষেপ নয়: ঢাবি শিক্ষক সমিতির

du_logo
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

du_logoবাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশি হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষক সমিতি বৃহস্পতিবারে এক বিবৃতি দিয়েছে। বিবৃতিটি নিম্নে তুলে ধরা হলো।

বাংলাদেশ একটি স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র। দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিসংগ্রামের মধ্য দিয়ে ত্রিশ লক্ষ শহীদের আত্মত্যাগ আর দুই লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রম এবং অজস্র মানুষের অপরিসীম ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত হয় দেশের স্বাধীনতা। পরাধীনতার নাগপাশ ছিন্ন করে বাঙ্গালী জাতি বিশ্বসভ্যতার অঙ্গনে আত্মমর্যাদাশীল ও স্বাতন্ত্র্য ঐতিহ্যের ধারক হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্য ও চেতনাকে ধারণ করে সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সার্বিক উন্নতি ও সমৃদ্ধির পানে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। দেশপ্রেম, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, আইনের শাসন ও সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষার মাধ্যমে রাষ্ট্রব্যবস্থাকে সুদৃঢ় ভিত্তির উপর দাঁড় করানো হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধীদের আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে যথাযথ আইনী প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বিচারকার্য সম্পন্ন করা হচ্ছে এবং বিচারের রায় কার্যকর করার মধ্য দিয়ে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করা হচ্ছে। দেশের এহেন ক্রান্তিলগ্নে আমাদের অভ্যন্তরীন বিষয়ে বন্ধু ও ভ্রাতৃপ্রতীম বিভিন্ন বিদেশি রাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের সাম্প্রতিক কুটনীতিক দৌঁড়ঝাঁপ জাতি হিসেবে আমাদের লজ্জিত করে। দেশের উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে সকল রাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল; কিন্তু আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কারো কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ কাম্য নয়। তাই সকল বিদেশী রাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের কাছে আমাদের অনুরোধ- অভ্যন্তরীণ সমস্যাদির সমাধান করার সুযোগে তারা যেন রাজনীতিবিদদের ভূমিকায় অবতীর্ন না হন। কেননা এদেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে এবং দেশের সার্বিক সমৃদ্ধিতে আমাদের রাজনীতিবিদদের অবদানই সবচেয়ে বেশি; ভবিষ্যতেও যেকোনো সমস্যার সমাধানে তারা সফল হতে পারবেন। আমাদের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের কাছেও অনুরোধ- তারা যেন দেশের অভ্যন্তরীণ কোনো বিষয়ে বিদেশীদের দ্বারস্থ হয়ে তাদের হস্তক্ষেপের সুযোগ করে না দেন। এতে কেউ লাভবান হবেনা; বরং সামগ্রিকভাবে দেশ, জাতি এবং আমাদের স্বাধীন স্বত্ত্বা, সার্বভৌমত্ব ও আত্মমর্যাদাবোধ ক্ষতিগ্রস্থ হবে।

সাকি/