সৌদিতে ৩০ হাজার ভুয়া প্রকৌশলী শনাক্ত

fake-Engineersসৌদিতে ৩০ হাজারেরও বেশি ভুয়া বিদেশি প্রকৌশলীকে চিহ্নিত করেছেন সৌদি কাউন্সিল অব ইঞ্জিনিয়ার্স (এসসিই)। দেশটির সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার কাজে এসব প্রকৌশলীরা নিয়োজিত ছিলেন। বৃহস্পতিবার  আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এসসিই’র প্রেসিডেন্ট হামাদ আল শাকওয়ি জানান, আমরা মোট ৩০ হাজার ভুয়া প্রকৌশলী চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়েছি।  ভুয়া সনদ দেখিয়ে তারা চাকরিতে নিয়োগ পেয়েছেন। তিনি জানান, কাউন্সিলের কাজ হচ্ছে প্রকৌশলী খাত তদারকি করে কোন ধরনের প্রকৌশলী নিয়োগ দেওয়া যায় সে ব্যাপারে কোম্পানি বা সরকারি সংস্থার কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়া।

দেশটির সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাগুলোর নিশ্চয়তা  রক্ষার এবং প্রকৌশলীদের মান উন্নয়ন করা জরুরি বলে মনে করেন তিনি। তিনি জানান, প্রকৌশলীদের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতার ভিত্তিতে কাজের মান নির্ধারণ করে দেয় আমরা। ইতোমধ্যেই এইসব ভুয়া প্রকৌশলীদের কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

যেহেতু প্রকৌশলীরা ইকামা সুবিধা পাওয়ার জন্য কাউন্সিলের কাছে নিবন্ধন করেছেন। সেহেতু এদের চিহ্নিত করা সহজ হয়েছে। এ কাজে সহায়তার জন্য দেশটির অভ্যন্তরীণ মন্ত্রণালয়কেও ধন্যবাদ জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, দেশি এবং বিদেশি প্রকৌশলি ও কনসালট্যান্টদের সনদ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা এই কাউন্সিলের দায়িত্ব।

এসসিই দক্ষ প্রকৌশলীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা যখনই একজন ভুয়া সনদধারী প্রকৌশলীকে চিহ্নিত করি তখনই তা মন্ত্রণালয় এবং তিনি যে কোম্পানিতে কাজ করছেন সেই কোম্পানির কর্তৃপক্ষকে জানাই।

ভুয়া সনদের প্রকৌশলীদের চিহ্নিত করা জরুরি উল্লেখ করে রিয়াদের চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট আব্দুল রহমান আল জামিল জানান, সারা বিশ্বে ভুয়াসনদের প্রকৌশলী আছে প্রচুর পরিমাণে। ড্রাইভার ও কৃষক ভিসা নিয়ে এদেশে এসেছেন  তারা।

সৌদিতে ৩০ বছর ধরে প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত হাসান আসাইনার জানান, সৌদির দূতাবাস সনদপত্র বাছাই করার জন্য ইলেকট্রনিক্স সিস্টেম চালু করেছে।তাই ভুয়া সনদ নিয়ে সৌদিতে প্রবেশ করা অনেক কঠিন। এদিকে সৌদির দূতাবাস সূত্র জানিয়েছে, খুব শিগগিরই অভ্যন্তরীণ ও বাহিরের দেশের মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করবে তারা। এছাড়া এখন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে তাদের সনদ ইস্যু করার পর যাচাই বাছাই করে নেওয়া হবে।

এস রহমান/এআর