মাদারীপুরের রাজৈরে রাত জেগে গ্রাম পাহারা দেয় সংখ্যালঘুরা

madaripur
মাদারীপুরের মানচিত্র

madaripurসংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের ঘটনায় মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের নয়াকান্দি ও সুতারকান্দি গ্রামবাসী নিরাপত্তার জন্য রাত জেগে গ্রাম পাহারা দিচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

রাজৈর বাজিতপুরের নয়াকান্দি গ্রামের কেডিবিএম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অবনী ভুষণ মণ্ডল জানান, একই এলাকায় কয়েক দিনের ব্যবধানে শ্রী শ্রী প্রণব মঠে ককটেল হামলা, নয়াকান্দি গ্রামে শিশু হত্যা, সুতারকান্দি গ্রামে ডাকাতিসহ সারাদেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর নির্যাতনের ঘটনায় জানমাল ও সম্পদ রক্ষার্থে নয়াকান্দি ও সুতারকান্দি গ্রামে ১০ জন করে ৪টি দল গঠন করা হয়েছে। গ্রামকে দুইটি ভাগে ভাগ করে ১০ জনের দুইটি দল নিয়মিত সারারাত জেগে পাহারা দিচ্ছে।

গ্রাম পাহারাদাররা জানান, সারাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের ঘটনায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে চরম আতঙ্ক দেখা দেওয়ায় তাদের মঠ, মন্দির, উপাসনালয় এবং ঘরবাড়ী রক্ষা করার জন্য এই দুটি গ্রামে দল গঠন করে রাত জেগে পাহারা দেওয়া হচ্ছে।  এ সময় তারা মাদারীপুর জেলার অনেক সংখ্যালঘু সম্প্রদায় আতংকের মধ্যে রয়েছে বলেও জানান।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ১৩ ডিসেম্বর রাতে মাদারীপুরের বাজিতপুর শ্রী শ্রী প্রণব মঠে সন্ত্রাসীদের ককটেল হামলা, মূর্তি ভাংচুর, ২২ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় রাজৈরের বাজিতপুর ইউনিয়নের নয়াকান্দি গ্রামের সত্যেন বেপারীর ২ বছরের শিশু ছেলে সাম্য বেপারীকে তার মায়ের কোল থেকে ছিনিয়ে নিয়ে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা এবং স্ত্রী মল্লিকা বেপারীর গলায় গামছা পেচিয়ে এবং মুখে কাপড় গুজে হত্যার চেষ্টা, ৩১ ডিসেম্বর রাতে বাজিতপুরের সুতারকান্দি গ্রামের খোকন চৌধুরীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতিসহ সারা দেশে হত্যা, সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ এবং লুটপাটের ঘটনায় মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের দুই পাশে অবস্থিত নয়াকান্দি ও সুতারকান্দি গ্রামের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় আতঙ্কিত হয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে এলাকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মনোবল চাঙ্গা করতে এবং সন্ত্রাসীদের ধরায় সহোযোগিতা করার জন্য গত ২৮ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় নয়াকান্দি বাজিতপুর পূর্বপাড়া সার্বজনীন দুর্গা মন্দির প্রাঙ্গণে এক শান্তি সভার আয়োজন করা হয়।

বিভুতিভূষণ মণ্ডলের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান শিশু সাম্য হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের ব্যাপারে সবার সহোযোগিতা কামনা করেন এবং গ্রাম পাহারা দেওয়ার জন্য এলাকার সকলের প্রতি অনুরোধ জানান।

এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাজৈর থানার ওসি (তদন্ত) মো. এমদাদুল হক, অবনী ভূষণ মন্ডল, নিরঞ্জন হাওলাদার প্রমুখ। এই সভার পর থেকেই ঐ এলাকার মানুষ রাত জেগে গ্রাম পাহারা দিচ্ছে।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।