মানিক সাহার মৃত্যুবার্ষিকী বুধবার

manik saha 14-1খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি একুশে পদকপ্রাপ্ত দৈনিক সংবাদ, একুশে টিভি ও বিবিসি সাংবাদিক মানিক সাহার দশম মৃত্যুবার্ষিকী ১৫ জানুয়ারি বুধবার। ২০০৪ সালের এই দিনে খুলনা প্রেসক্লাবের অদূরে দুপুর ১ টায় সন্ত্রাসীদের বোমার আঘাতে  নিহত হন।

দেশ-বিদেশে আলোড়ন তোলা এ হত্যা ঘটনার বিচার হয়নি। এদিকে মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সাংবাদিক মানিক সাহা স্মৃতি পরিষদ, সিপিবি, ছাত্র ইউনিয়ন, খুলনা প্রেসক্লাব, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে) সহ বিভিন্ন সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছে।

সাংবাদিক মানিক সাহা হত্যাকাণ্ডের পর সেদিন রাতেই খুলনা থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই )রনজিৎ কুমার পাল বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে মামলা দায়ের করেন। দুইটি অংশের ওই মামলার (হত্যা ও বিস্ফোরক) তদন্ত শেষে ২০০৮ সালের ১২ ডিসেম্বর ১৩ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করা হয়। পরবর্তীতে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দিলে তদন্ত শেষে আরো একজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে সম্পূরক চার্জশীট দেওয়া হয়। আসামিদের মধ্যে তিনজন ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন আব্দুর রশিদ, আলতাফ ওরফে বিডিআর আলতাফ এবং মাহফুজ ওরফে মফিজ ওরফে নাসিম ওরফে শফিকুল ইসলাম।

এছাড়া চারজন জেল হাজতে রয়েছেন। তারা হলেন সুমন ওরফে নূরুজ্জামান, আকরাম হোসেন, আলী আকবর শিকদার, মোঃ হাই ইসলাম ওরফে কচি। পলাতক রয়েছে বেলাল, সাত্তার, ওমর ফারুক, সরোয়ার হোসেন ওরফে সাকা ও মিঠুন।

বর্তমানে মামলা দুটি (হত্যা ও বিস্ফোরক) মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ সায়েদুর রহমানের আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। মামলার পরবর্তী দিন আগামি ১৯ জানুয়ারি।

দীর্ঘ সময়েও এ হত্যাকাণ্ডের বিচার সম্পন্ন না হওয়ায় ন্যায়বিচারের আশা ছেড়ে দিয়েছেন নিহতের স্ত্রী নন্দা সাহা, মেয়ে নাতাশা ও পর্শিয়া।

এদিকে মানিক সাহার ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে খুলনা প্রেসক্লাব, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন, মানিক সাহা স্মৃতি পরিষদ, উদীচী, রতন সেন পাবলিক লাইব্রেরিসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন এবং নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে বুধবার বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।